Reserve Bank of India-র প্রতীক চিহ্ন হিসাবে কেন থাকে বাঘের পেছনে এক পায়ে দাঁড়িয়ে তালগাছ! জানুন এর প্রকৃত অর্থ কী?

RBI বা Reserve Bank of India হচ্ছে ভারতীয় মুদ্রার আঁতুড়ঘর। দেশের গোটা অর্থ ব্যবস্থাকে পরিচালনা করার দায়িত্ব রয়েছে RBI। এমনকি অর্থ মন্ত্রকের অধীনে যাবতীয় নোট ও মুদ্রা ছাপানোর কাজ এখানেই করা হয়। এননকি ৮৭ বছর আগে যখন ভারতে ব্রিটিশ রাজত্ব ছিল তখনি RBI প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল ও নিজের যাত্রা শুরু করেছিল। RBI (Reserve Bank of India)-এর জন্মদিনের দিনটি হলো ১ এপ্রিল ১৯৩৫। তবে জানিয়ে দি যে রিজার্ভ ব্যাংকের বর্তমান গভর্নর হলো শক্তিকান্ত দাস। রিজ়ার্ভ ব্যাঙ্কের মতো তার প্রতীকচিহ্নটিও দেশের সনাতন ঐতিহ্যের বার্তাবহ।

 

Reserve Bank of India logo

গোলাকার চাকতির উপর একটি বাঘ এবং তার ঠিক পিছন দিক দিয়ে মাথা তুলে দাঁড়ানো এক ফালি তালগাছ। আরবিআইকে চেনাতে এই প্রতীকই যথেষ্ট। আপনি যদি ভারতীয় মুদ্রার নোট গুলি ভালো ভাবে লক্ষ্য করে থাকবেন দেখবেন যে ভারতীয় মুদ্রার প্রতিটি এই চিহ্ন বর্তমান রয়েছে। তবে প্রশ্ন হচ্ছে যে RBI (Reserve Bank of India) তাদের লোগো হিসাবে এই চিহ্নটিকেই কেনো বেছে নিয়েছিল ? কি বিশেষত্ব রয়েছে এই চিহ্নে ? এই চিহ্নের অর্থ কি? কী বলতে চায় রিজার্ভ ব্যাঙ্কের বাঘ আর গাছের প্রতীক? আসুন এই আর্টিকেলে এর বিষয় বিস্তারিত জেনেনি।

আসলে ব্রিটিশ ভারতে রিজ়ার্ভ ব্যাঙ্কের প্রথম পর্যায়ের দিনগুলিতে শীর্ষস্থানীয় কর্তারা একটি প্রতীকচিহ্নের প্রয়োজনীয়তা অনুভব করেছিলেন। দেশের সমস্ত টাকা, চেক এবং মুদ্রা সংক্রান্ত যাবতীয় ক্ষেত্রে যে চিহ্ন রিজ়ার্ভ ব্যাঙ্কের প্রতিনিধিত্ব করবে। প্রতীক তৈরির জন্য প্রাথমিক ভাবে কয়েকটি লক্ষ্য নির্ধারণ করা হয়েছিল। শীর্ষকর্তারা আলোচনার মাধ্যমে স্থির করেছিলেন, রিজার্ভ ব্যাঙ্কের প্রতীকচিহ্নে এই ব্যাঙ্কের সরকারি স্বীকৃতি, পদমর্যাদার বার্তা নিহিত থাকবে। সরকারের ছাপ যেন চিহ্নের মধ্যে প্রতিফলিত না হয়, সে বিষয়েও খেয়াল রাখতে বলা হয়েছিল।

RBI-এর প্রতীক বা লোগো (RBI LOGO) নির্বাচনের সময় কর্তারা সিদ্ধান্ত নিয়েছিল যে এমন কোনো লোগোকে নির্বাচন করা হবে যেই লোগোতে ভারতের নিজস্ব কিছু থাকবে। অর্থাৎ যাতে ব্যাঙ্কের ভারতীয়ত্ব অক্ষুণ্ণ থাকে। আর সাথে কর্তারা এটাও সিদ্ধান্ত নিয়েছিল যে আরবিআইয়ের লোগো খুব সাধারণ আর সরল থাকবে এবং তার সাথে থাকবে শৈল্পিক ভাবনার প্রতিফলন। আর এই কথা মাথায় রেখেই লোগো (RBI LOGO) তৈরি করা হয়েছিল যে এই লোগো দেখলেই মানুষ চিনতে পারবে যে এটা RBI-এর লোগো। ১৮৩৫ থেকে ১৯১৮ সাল পর্যন্ত ভারতে ব্রিটিশ ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানির জোড়া মোহর (ডবল্ মোহর) প্রচলিত ছিল।

অনেক ভাবনাচিন্তার পর এই মোহরটিকে রিজার্ভ ব্যাঙ্কের প্রতীক হিসাবে উপযুক্ত বলে নির্বাচন করা হয়েছিল। ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানির জোড়া মোহরের মূল্য ছিল ৩০ টাকার সমান। সোনালি সেই মোহরে একটি সিংহ এবং একটি তালগাছের ছবি খোদাই করা ছিল। রিজার্ভ ব্যাঙ্কের জন্য এই ছবিতে সামান্য পরিবর্তন করা হয়।

RBI

আরবিআইয়ের প্রতীকে জোড়া মোহরের সেই সিংহের জায়গায় বসানো হয় বাঘ। কারণ সিংহের চেয়ে বাঘ ভারতের প্রকৃতির সঙ্গে অপেক্ষাকৃত বেশি মানানসই। জানিয়ে দি যে RBI-এর লোগোতে থাকা এই বাঘ , ক্ষমতা এবং কমনীয়তার প্রতীক। এই বিষয় RBI-এর একজন কর্তা বলেছেন যে ‘‘সমকালীন সময়ে ভারতে সিংহ প্রায় বিলুপ্ত হয়ে গিয়েছিল। অন্য দিকে বনেজঙ্গলে বাঘ দেখা যেত আকছার। তাই সিংহের বদলে বাঘকেই বেশি ‘ভারতীয়’ বলে মনে করা হয়েছিল।’’ আর RBI-এর চিহ্নে থাকা তালগাছ সত্য, মূল্য, জীবনীশক্তি, আন্তরিকতা, উর্বরতা, নিরাপত্তা এবং ঐক্যের প্রতীক।

গোলাকার চাকতির উপর বাঘ এবং তালগাছের চারদিকে গোল করে লেখা থাকে ‘রিজার্ভ ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া’। ইংরেজি এবং দেবনাগরী, দুই হরফেই ব্যাঙ্কের নাম লেখা থাকে প্রতীকের উপর। ১৯৩৫ সালে রিজ়ার্ভ ব্যাঙ্কের তৎকালীন ডেপুটি গভর্নর ছিলেন জেমস ব্রেইড টেলর। তাঁর তত্ত্বাবধানে বাঘ এবং তালগাছের ছবি-সহ প্রতীকচিহ্নে সরকারের সিলমোহর পড়েছিল।

 

 

Related Articles

Back to top button