এক ধাক্কায় ৫৪ লক্ষ টাকা উপার্জন করার সুযোগ দিচ্ছে NASA, এইভাবে করুন রেজিস্ট্রেশন

বিশ্বের অন্যতম স্পেস এজেন্সি নাসা (NASA) তাদের ভবিষ্যতের মঙ্গল গ্রহ সংক্রান্ত মিশন গুলিকে ক্রুটিহীন ভাবে করার উদ্দেশ্যে একটি বিশেষ পদক্ষেপ নিয়েছে। সম্প্রতি NASA একটি নতুন চ্যালেঞ্জ উপস্থাপন করেছে, যেখানে তারা ডেভেলপারদের একটি কৃত্তিম বা শিমুলেটেড মঙ্গলগ্রহের পরিবেশ তৈরি করতে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন৷ চ্যালেঞ্জটির নাম রাখা হয়েছে মার্সএক্সআর (MarsXR). আপনাদের জানিয়ে রাখি, তাদের এই ভার্চুয়াল রিয়েলিটি (XR) সিমুলেশনটি তৈরীর উদ্দেশ্য হল , মঙ্গল গ্রহে মহাকাশচারীদের জন্য অপেক্ষা করছে এমন অভিজ্ঞতা এবং পরিস্থিতির জন্য তাদের আগাম প্রস্তুত করা।

মার্কিন মহাকাশ সংস্থা NASA, সম্প্রতি অন্যতম আমেরিকান ভিডিও গেম কোম্পানি, এপিক গেমস ( Epic games) এবং সফটওয়্যার বিকাশকারী সংস্থা বুয়েন্দিয়া (Buendea)-এর সাথে দলবদ্ধ হয়েছে এবং তারা একটি নতুন ভার্চুয়াল রিয়েলিটি (XR) গবেষণা, উন্নয়ন, এবং পরীক্ষার পরিবেশ তৈরী করার উদ্যোগ নিয়েছে। যাতে নোভোচারী মঙ্গল গ্রহে যে অভিজ্ঞতা ও পরিস্থিতির সম্মুখীন হবে তার জন্য প্রস্তুত হতে পারে”। এরজন্য NASA জনপ্রিয় ক্রাউডসোর্সিং প্ল্যাটফর্ম হিরো এক্স (HeroX)-এর সাথে মিলিত হয়েছে এবং ডেভলপারস দের উদ্দেশ্যে মার্স এক্সআর নামক চ্যালেঞ্জটি লঞ্চ করেছে। এই চ্যালেঞ্জে অংশগ্রহণগ্রহণ করার শেষ তারিখ আগামী ২৬ শে,জুলাই।

নাসার ‘MarsXR’ চ্যালেঞ্জটির জন্য, ডেভেলপারদের Epic games ‘ Unreal Engine 5’ ব্যবহার করে, নতুন মার্স এক্সআর অপারেশন সাপোর্ট সিস্টেম (XOSS) পরিবেশের জন্য, প্রয়োজনীয় সম্পদ এবং দৃশ্যগুলি তৈরি করতে হবে। আপনাদের জানিয়ে রাখি, এপিক গেমস কোম্পানির ‘ইঞ্জিন 5’ হল বিশ্বের সবচেয়ে উন্মুক্ত এবং উন্নত রিয়েল-টাইম 3D টুল যা অত্যাধুনিক কাজে ব্যবহৃত হয়। এই প্রকল্পে ডেভেলপারদের অবিকল মঙ্গল গ্রহের মতোই প্রাকৃতিক পরিবেশ এবং সেখানকার পরিস্থিতি তৈরী করতে হবে। যার মধ্যে রয়েছে মঙ্গলের দিনের বেলার কমলা রঙ যা রাতে নীল হয়ে যায়, বাস্তবের মত আবহাওয়া, মঙ্গলের মাধ্যাকর্ষণ শক্তি, এছাড়া প্রায় ৪০০ বর্গ কিলোমিটার গবেষণা হয়ে যাওয়া মঙ্গলের ভুখন্ড তৈরী করতে হবে যেখানে স্পেসসুট এবং রোভারের মত সম্পদ থাকবে।

মার্সএক্সআর-এ অংশগ্রহণ করার জন্য মোট পাঁচটি আলাদা আলাদা বিভাগ রয়েছে। যেগুলি হল- ক্যাম্প স্থাপন, বৈজ্ঞানিক গবেষণা, রক্ষণাবেক্ষণ, অনুসন্ধান এবং ব্লো আওয়ার মাইন্ডস। সেইসাথে, নাসা এই চ্যালেঞ্জের জন্য মোট পুরস্কার ধার্য করেছে ৭০,০০০ ডলার যা ভারতীয় মুদ্রায় হয় প্রায় ৫৪ লক্ষ টাকা। তবে পুরস্কারের মোট অর্থটি ২০ জনের মধ্যে বিতরণ করা হবে। সেই হিসাবে উপরিউক্ত প্রতিটি বিভাগে চারটি করে পুরস্কার থাকবে এবং প্রত্যেক বিজয়ী ৬,০০০ ডলার (৪,৬২,০০০ টাকা ) করে পাবেন। নাসা তাদের বিজ্ঞপ্তিতে আরও জানিয়েছে দলগুলি একটি বিভাগেও অংশগ্রহণ করতেপারে আবার একাধিক বিভাগেও অংশ নিতে পারে। তবে সেক্ষেত্রে তাদের বিষয়বস্তু এবং কাজ, তাদের জমাকরা অন্য কাজগুলির থেকে আলাদা হতে হবে। এভাবে দলগুলি তাদের যোগ্যতার ভিত্তিতে একাধিক পুরস্কারও জিততে পারে।

Related Articles

Back to top button