এক সময় পড়াশোনার খাতিরে বিক্রি করতে হয়েছিল মায়ের গহনা পর্যন্ত, আজ বছর গেলে ব্যবসা থেকে আয় করছেন ১.৫ কোটি টাকা

মায়ের গহনা বিক্রি করে পড়াশোনা করেন, আজ নিজের আইডিয়াই ব্যবসা করে আয় করছেন কোটি কোটি টাকা

কোন কাজই ছোট নয়! ছোট থেকেই সূচনা করে যে বড় সাফল্য অর্জন করা যায় তা আবারও একবার প্রমাণ করলেন বিহারের এক যুবক। হ্যাঁ, বিহারের এই যুবকের নাম সিদ্ধান্ত কুমার (Siddhant Kumar)। যিনি পুরনো জিন্স কেনা বেচা করেই হয়েছেন আজ কোটিপতি। আসুন জানা যাক তার সাফল্যের পুরো গল্প (Success Story)।

Siddhant kumar

সিদ্ধান্ত নামের এই যুবক বিহারের এক ছোট্ট গ্রামের বাসিন্দা। তিনি গ্রামের এলাকাতেই পড়াশোনা করে আইআইটি ডিগ্রী অর্জন করেছেন। কিন্তু বর্তমানে চাকরির যা অবস্থা তাই তিনি নিজের ব্যবসাকে বেছে নিয়েছেন। তিনি বর্তমানে দিল্লিতে রয়েছেন। সিদ্ধান্ত কুমার ডেনিম ডেকোর (Denim Decor) থেকে একটি নতুন স্টার্টআপ শুরু করেন। যেখানে তিনি পুরনো জিন্সের সাহায্যে আকর্ষণীয় নতুন সজ্জার জিনিস তৈরী করেন। এখনো পর্যন্ত তিনি পুরনো জিন্স থেকে ৪০০ টিরও বেশি নতুন সাজসজ্জা তৈরী করেছেন। যার বার্ষিক টার্নওভার প্রায় দেড় কোটি।

 মা ছেলের উন্নতির জন্য গহনা বিক্রি করেন:-

প্রত্যেক বাবা-মার স্বপ্ন থাকে তার ছেলে যেন জীবনে বড় হয়ে ওঠে। ছেলের সাফল্যের জন্য প্রত্যেক বাবা-মা তাদের সর্বটুকু দিতে রাজি হয়ে যায়। সিদ্ধান্ত কুমারের ক্ষেত্রে ঠিক এমনটাই হয়েছে। তাঁদের আর্থিক সীমাবদ্ধতার কারণে ছেলের সাফল্যের জন্য তার মা ঘরের গহনা বিক্রি করে দেন। এই গহনা বিক্রির টাকা নিয়েই কুমার দিল্লিতে গিয়ে পড়াশোনা শুরু করেন।

Denim decor

দিল্লিতে পড়াশোনার খরচ মেটাতে কাজও করেন:-

সিদ্ধান্ত কুমার বলেন, ২০০৪ থেকে ২০০৬ সাল পর্যন্ত তিনি পাটনায় ফাইন আর্টস এবং ডিজাইন কোর্স করেন। এরপর পড়াশোনা সূত্রে দিল্লি চলে আসেন। কিন্তু দিল্লিতে পড়াশোনার খরচ মেটাতে তাকে পড়াশোনা সাথে সাথে কাজও করতে হয়। যেহেতু তিনি পাটনা থেকে ফাইন আর্টস ও ডিজাইনের কোর্স করেন সেহেতু তিনি পড়াশোনার ফাঁকে ছবি আঁকার কাজও করেছেন।

 

সিদ্ধান্ত কুমার বলেন, যেহেতু আমাদের আর্থিক অবস্থা ততটা ভালো না সেহেতু বাবা দিল্লিপাঠাতে রাজি ছিলেন না। কারণ বাবার ক্ষেত্রে পড়াশোনার খরচ চালানো মুশকিল। কিন্তু তার মা সাত-পাঁচ না ভেবে ছেলের সিদ্ধান্তে রাজি হন। কিন্তু আজ তিনি জীবন সংগ্রামে দারুণ সফল হয়েছে।

সিদ্ধান্ত কুমার পড়াশোনা শেষ করার পর ব্যাঙ্গালোরের এক বেসরকারি কোম্পানিতে কাজ শুরু করলেও পরে এই কাজ ছেড়ে দেন। তিনি ২০১৩ সালের শিক্ষামূলক গেম ডিজাইন স্টার্টআপ শুরু করেন। কিন্তু কিছু টেকনিক্যাল অসুবিধার এই সিদ্ধান্তও পরিবর্তন করতে হয় তাকে। এরপর তিনি এক মাথায় নতুন আইডিয়া নিয়ে আসেন। যেখানে তিনি পুরনো জিন্স, ফেলে দেওয়া জিন্সকে কাজে লাগিয়ে অনন্য ডিজাইনের সজ্জা তৈরি করেন। তার তৈরি এই নতুন ডিজাইনের সজ্জা দেয়াল সাজানো ও ঘর সাজানোর জন্য মানুষের কাছে খুব পছন্দের হয়ে ওঠে। এখান থেকেই তিনি ক্যারিয়ারের নতুন মোর নেন।

ডেনিম ডেকোর সাজসজ্জায় নতুন পরিচয় গড়েন :-

তার এই স্টার্টআপে ফেলে দেওয়া জিন্স বা পুরনো জিন্সকে অনন্য সজ্জায় গড়ে তোলেন। তিনি প্রথম ৫০-৬০ টি নতুন সজ্জা তৈরি করে দিল্লির সিটি মলে পাঠান। সেখান থেকে ভালো সারা পাওয়ার পরে তিনি এই কাজে মনস্থির করেন। খুব অল্প সময়ের মধ্যেই তার এই প্রযুক্তি দেশের বিভিন্ন প্রান্তে স্বীকৃতি পেয়েছে। এই স্টার্টআপ থেকে তার আজ বার্ষিক টার্নওভার ১.৫ কোটি টাকারও (Indian Ruppes) বেশি।

Related Articles

Back to top button