যেখানে সম্পত্তির জেরে পারিবারিক সম্পর্ক পর্যন্ত হয়ে যায় ছিন্ন, সেখানে বাবার ৭ হাজার কোটির সম্পত্তি ছেড়ে দিলেন জয়ন্তী

সম্পত্তি এমন এক জিনিস যা থাকলেও, বিপদ, আর না থাকলেও বিপদ। এই সম্পত্তির জন্যই দেখা যায়, কত ভাই বোনের মধ্যে সম্পর্ক খারাপ হয়ে যেতে। আবার এই সম্পত্তির জন্যই কাছের মানুষ হয়ে যায় পর। তবে এবার বাবার ৭০০০ কোটি টাকার সম্পত্তি বিক্রি করতে চেয়ে দৃষ্টান্ত হয়ে থাকলেন জয়ন্তী চৌহান (jayanti chauhan)।

জনপ্রিয় পানীয় জল বিসলেরি কোম্পানি বিক্রি করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন কোম্পানির প্রধান রমেশ চৌহান (Ramesh raj chauhan)। আর এই কোম্পানি কেনার দৌড়ে এগিয়ে রয়েছে টাটা কনজিউমার প্রোডাক্টস লিমিটেড। কিন্তু এখন প্রশ্ন হচ্ছে, দেশের এত জনপ্রিয় একটি ব্যান্ড কেন এভাবে বিক্রির সিদ্ধান্ত নিলেন কোম্পানির মালিক?

img 20221126 194510

কোম্পানি বিক্রির সিদ্ধান্ত নিলেও, এই কোম্পানি নিয়ে খুবই আবেগপ্রবণ বিসলেরির মালিক রমেশ চৌহান। তিনি জানান, তাঁর অবর্তমানে এই কোম্পানি এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার মত কেউ নেই। কারণ, তাঁর ৩০ বছর বয়সী মেয়ের বাবার এই কোম্পানির বিষয়ে বিশেষ কোন আগ্রহ নেই। তিনি এই কোম্পানি বিক্রি করতে চাইছেন। ২৪ বছর বয়সে বাবার ব্যবসা দেখার দায়িত্ব নিয়ে বিসলেরি ইন্টারন্যাশনালের ভাইস চেয়ারপার্সন হওয়া সত্ত্বেও এবার এই কোম্পানি ছাড়তে চাইছেন তিনি।

জানিয়ে রাখি, কোম্পানিতে ঢুকে প্রথমে ২০১১ সালে দিল্লী এবং পরবর্তীতে মুম্বাই অফিসের দায়িত্ব নিয়েছিলেন বিসলেরির মালিক রমেশ চৌহানের একমাত্র মেয়ে জয়ন্তী চৌহান (jayanti chauhan)। বিসলারিকে আন্তর্জাতিক ব্র্যান্ড হিসেবে গড়ে তোলার ক্ষেত্রে তিনি মুখ্য ভূমিকা পালন করেছিলেন। কোম্পানির বিজ্ঞাপন এবং বিপণন পরিচালনা করার পাশাপাশি কোম্পানিতে অটোমেশন প্রক্রিয়াও শুরু করেছিলেন জয়ন্তী।

img 20221126 194456

বিসলেরি ব্র্যান্ডকে পালিশ করতে জয়ন্তী গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছেন। কোম্পানির বিজ্ঞাপন প্রচার ছাড়াও, তার ফোকাস পণ্য উন্নয়নে থাকে। বিসলেরি ছাড়াও, জয়ন্তী বিসলেরি মিনারেল ওয়াটার, বেদিকা ন্যাচারাল মিনারেল ওয়াটার, ফিজি ফ্রুট ড্রিংক এবং বিসলেরি হ্যান্ড পিউরিফায়ার পণ্যের কাজ পরিচালনা করছে। মার্কেটিং ছাড়াও ব্র্যান্ড ম্যানেজমেন্ট এবং ডিজিটাল মার্কেটিংয়ে তার গভীর আগ্রহ রয়েছে। তিনি কোম্পানির বিজ্ঞাপন এবং যোগাযোগের সাথে সক্রিয়ভাবে জড়িত।

এতকিছু করা সত্ত্বেও এবার এই কোম্পানিকে বিক্রি করে দিতে চাইছেন জয়ন্তী। যদিও এই বিষয়ে বিশদে কিছু না বললেও, তাঁর কেরিয়ার অর্থাৎ ফ্যাশন সম্পর্কিত বিষয়ে রয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

জানিয়ে রাখি, দিল্লি থেকে প্রাথমিক পড়াশোনা শেষ করে ফ্যাশন ডিজাইনিং কোর্সের জন্য লন্ডনে চলে যান জয়ন্তী (jayanti chauhan)। সেখানে লন্ডন কলেজ অফ ফ্যাশন থেকে ফ্যাশন ডিজাইনিংয়ে স্নাতক ডিগ্রি অর্জন করার পাশাপাশি ইস্তিতুতো মারাঙ্গোনি মিলানো থেকে ফ্যাশন স্টাইলিং এর একটি কোর্সও করেছেন তিনি। আবার লন্ডন বিশ্ববিদ্যালয়ের স্কুল অফ ওরিয়েন্টাল অ্যান্ড আফ্রিকান স্টাডিজ থেকে আরবি ভাষায় ডিগ্রি অর্জন করে বর্তমানে লন্ডনেই রয়েছেন জয়ন্তী।

Related Articles

Back to top button