আদানিকাণ্ডের জেরে ব্যাঙ্কে টাকা রাখা নিয়ে দুশ্চিন্তা! শেষ অবধি বিজ্ঞপ্তি জারি করলো RBI

আদানিকাণ্ডের জেরে ব্যাঙ্কে টাকা রাখা নিয়ে দুশ্চিন্তা

সম্প্রতি হিডেনবার্গ রিসার্চ রিপোর্ট (Hindenburg Research Report) প্রকাশ্যে আসার পর আদানি গ্রুপের (Adani Group) শেয়ার তরতাড়িয়ে কমেছে। আর এর প্রভাব পড়েছে আদানি গ্রুপের বিনিয়োগকারীদের উপরও। প্রসঙ্গত, বিভিন্ন ব্যাংগুলিরও আদানি গ্রুপে বিনিয়োগ রয়েছে। আর এর ফলে চিন্তায় পড়েছে দেশের সাধারণ মানুষ। যারা ব্যাংকে টাকা গচ্ছিত রেখেছেন। তবে আমানতকারীকে নিশ্চিত করে একটি বিবৃতি দিয়েছে আরবিআই। চলুন এ সম্পর্কে আরো বিস্তারিত জেনে নিন।

Adani

গত সপ্তাহে প্রকাশ পেয়েছে হিন্ডেনবার্গ রিসার্চ রিপোর্ট। এই রিপোর্টে আদানি গ্রুপের বিরুদ্ধে কারচুপির অভিযোগ আনা হয়েছে। এর পর থেকে আদানির শেয়ারে ধস নেমেছে এবং ক্ষতি হয়েছে কয়েক হাজার কোটি টাকা। এই এক সপ্তাহে বিপুল পরিমাণ অর্থ লোকসান হয়েছে আদানির। এখনো পর্যন্ত প্রায় ১০ হাজার কোটি টাকা শেয়ার কমেছে আদানি গ্রুপের। এর জেরে বিশ্বের সর্বোচ্চ ধনী ব্যাক্তিদের তালিকায় ৩ নম্বর থেকে ১৬ নম্বরে নেমে গিয়েছেন গৌতম আদানি (Goutam Adani)।

আর এই ঘটনার পর থেকে সাধারণ মানুষের দুশ্চিন্তা বেড়েছে। কেননা আদানি গ্রুপে অনেকে বিনিয়োগ করেছিল। আদানির শেয়ার ধসে প্রভাব পড়েছে সেই কোম্পানিগুলির উপরও। এর মধ্যে রয়েছে অনেক বেসরকারি ব্যাংকও (Non Govt. Bank)। জানা গেছে, এ দেশের অনেক ব্যাংক আদানি গ্রুপকে ঋণ দিয়েছে। এই পরিস্থিতিতে আদানি গ্রুপের পতনের কারণে ব্যাংকে গচ্ছিত টাকার কি হবে? তা নিয়ে দুশ্চিন্তায় ভুগছেন সাধারন মানুষ। এতোদিন কেন্দ্রীয় ব্যাংক আরবিও (RBI) এ নিয়ে কোনো বিবৃতি জারি করেনি। ফলে সাধারণ মানুষের চিন্তা আরো বেড়েছিল।

RBI

তবে আজ আরবিআই একটি বিজ্ঞপ্তি (Notice) জারি করেছে। যার ফলে সাধারণ মানুষ ব্যাংকে গচ্ছিত টাকা নিয়ে অনেকটাই সুরক্ষিত হয়েছে। আজকে আরবিআই কর্তৃক যে বিবৃতি দেওয়া হয়েছে, তাতে বলা হয়েছে , ‘‘সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদনে একটি ব্যবসায়িক গোষ্ঠীর সঙ্গে ভারতীয় ব্যাঙ্কগুলির সম্পর্ক নিয়ে দুশ্চিন্তার চিত্র উঠে এসেছে। আর্থিক স্থিতিশীলতা বজায় রাখতে নিয়ন্ত্রক এবং নজরদার হিসাবে আরবিআই ব্যাঙ্কিং ক্ষেত্রের উপর প্রতিনিয়ত নজরদারি চালিয়ে যাচ্ছে।’’

Related Articles

Back to top button