এটা কী ফুল, না নারী? ছবির ধাঁধাঁই বলে নাকি দেবে আপনি কেমন মানুষ

আমাদের ভারতে ট্যালেন্টেড বা প্রতিভাবান ব্যক্তির ছড়াছড়ি রয়েছে। কেউ ভালো নাচ করে, তো কেউ ভালো গান, কেউ সুন্দর আঁকে ইত্যাদি। এছাড়া কিছু কিছু প্রতিভা এমনও যা দেখে মানুষ কিছুক্ষন নিজের চোখে বিশ্বাস করতে পারে না যে সে ঠিক দেখছে নাকি ভুল ? এই প্রতিভাগুলি মানুষকে ভাবতে বাধ্য করে দেয় এমনটাও সম্ভব ? এই প্রতিভাগুলি মানুষকে মুগ্ধ করার সাথে সাথে অবাকও করে দেয়। যেমন সম্প্রতি এক শিল্পীর অঙ্কন সবাইকে অবাক করে দিচ্ছে। এই শিল্পীর প্রতিভা সোশ্যাল মিডিয়ায় বেশ ভাইরাল হচ্ছে। কেউ কেউ এই আঁকার প্রশংসা করছে আবার কেউ কেউ অবাক হয়ে বলছে যে এটা আঁকা তো নয় যেন ধাঁধা। এছাড়া এই ছবিটি আপনার চারিত্রিক বৈশিষ্ট্যের বিষয়ও অনেক কথা বলে দেবে। তবে আসুন এই চিত্রের বিষয় বিস্তারিত জেনেনি।

ঝোপে ফুটে আছে এক গুচ্ছ লিলি। সাদা আর হলুদের কারুকার্যে সে ফুল পাপড়ি মেলেছে। ফুল আর পাতার ফাঁকে উঁকি মারছে রাতের আকাশ। সব মিলিয়ে মায়াবী পরিবেশ তৈরি হয়েছে। কিন্তু এটি শুধু ছবি নয়। এই ছবির মধ্যে লুকিয়ে আছে ধাঁধাঁ। ছবিতে ফুলগুলি এমন ভাবে সাজানো, তা এক নারীর মুখের আকার ধারণ করেছে। লিলির পাপড়িতেই তৈরি হয়েছে তাঁর চোখ, ঠোঁট, গাল, কপাল এবং ভ্রু। তিনি চোখ বন্ধ করে রয়েছেন। এই ছবির দিকে তাকালে কেউ কেউ প্রথমেই নারীমুখ খেয়াল করেন না। প্রথমে দেখতে পান শুধু ফুলগুলিকেই। কিছু ক্ষণ ভাল করে নজর করলে চোখে পড়ে পাপড়ির কারুকার্যে গড়ে ওঠা মুখটি। আবার অনেকে প্রথম দেখাতেই নারীমুখটিকে খুঁজে পান। ফুল তখন হয়ে যায় গৌণ। ছবিটি সমাজমাধ্যমে পোস্ট করে দু’রকম দৃষ্টিকোণের ভিত্তিতে মানুষের দু’রকম চারিত্রিক বৈশিষ্ট্যের কথা তুলে ধরা হয়েছে।

Mysterious Painting

বলা হচ্ছে যে যদি কেউ এই ছবিতে প্রথমে ফুলটুকুই দেখতে পান, তার অর্থ হল, সেই ব্যক্তি সব সময় সকলের মধ্যে ভাল কিছু খুঁজে পান। অন্যরা যদি তাঁকে কষ্টও দেন তাহলেও তিনি তাঁদের ক্ষমা করে দেন। আশা রাখেন, কোনও এক দিন তিনি ঠিক শুধরে যাবেন। এছাড়া এই ধরণের মানুষরা জীবনে নানা ক্ষেত্রে সহজে বিচলিত হয়ে পড়েন। কী করবেন, বুঝে উঠতে পারেন না। তবে ভরসা রাখেন যে এক দিন সব ঠিক হয়ে যাবে। আর যারা এই ছবিতে নারীর মুখ দেখতে পাচ্ছে তাদের বিষয় বলা হচ্ছে যে তাঁরা সহজে হারানো জিনিসের মায়া কাটিয়ে উঠতে পারেন না। সম্পর্ক ভাঙার যন্ত্রণা কাটিয়ে উঠতে তাঁদের অনেক বেশি সময় লাগে। এ ছাড়া, যখনই তাঁরা কোনও কাজ করেন, তাতে নিজের সেরাটা উজাড় করে দেওয়ার চেষ্টা করেন।

এই ছবিটিকে মানুষ দ্বারা খুব পছন্দ করা হচ্ছে। অনেকেই এই ছবিটির ধাঁধা ও চারিত্রিক বৈশিষ্ট্যের ব্যাপারটিতে খুব মজা পেয়েছে ও এই নিয়ে মেতে রয়েছে। এমনকি অনেক মানুষ জানিয়েছে যে চারিত্রিক বৈশিষ্ট্য সম্পর্কে ছবি অনুযায়ী যা যা দাবি করা হয়েছে, তা অনেকাংশে মিলে গিয়েছে। এই সব কারণে এই ছবিটি সোশ্যাল মিডিয়ায় ঝড়ের বেগে ভাইরাল হচ্ছে ও এই ছবিটি আলোচনার বিষয় হয়ে রয়েছে।

Related Articles

Back to top button