ওজন ২০০ কেজি, শুধুমাত্র খাবার তৈরী করাতে করলো দ্বিতীয় বিয়ে

কাটিহালের জয় নগরে একজন ৩০ বছর বয়সী পুরুষ বসবাস করেন যার নাম হলো রাফিক আদনান। এনার ওজন হচ্ছে ২০০ কিলো। এতো বেশি মোটা হওয়ায় রফিকের হাঁটাচলা করতে সমস্যা হয়, একটু হাঁটার পর তিনি হাপিয়ে যান। যার কারণে তিনি বাইক ব্যবহার করেন। আবার সাধারণ বাইক রফিকের ওজন বহন করতে পারে না তাই রাফিক বুলেট বাইক ব্যবহার করেন।

যদিও বুলেট বাইকটিও রফিকের ওজনের কারণে ঠিক করে চলে না। জানিয়ে দি রাফিক রোজ দিনে ৩ কিলো চাল, ৪ কিলো আটা, ২ কিলো মিট, ও দেড় কিলো মাছ খায়। এছাড়া তার ৩ বেলা ২ লিটার করে দুধেরও প্রয়োজন হয়। অর্থাৎ দিনে ১৪-১৫ কিলো খাওয়ারের প্রয়োজন হয় রফিকের। এমনকি একজন স্ত্রী তাকে এতোটা খাওয়া তৈরি করে দিতে পারতো না বলে রাফিক দ্বিতীয় বিয়ে করে।

অতিরিক্ত মোটা হওয়ার কারণে তার বাচ্চাও হচ্ছে না বলে জানা গেছে। এছাড়া রাফিক এতো বেশি খাওয়ার খায় দেখে গ্রামের লোকেরা রাফিককে কোনো দাওয়াতে নিমন্ত্রণ করতেও ভয় পায়। রাফিকজানিয়েছেন যে তিনি ছোটবেলা থেকে এতোটা মোটা ছিলেন। কিন্তু আগে তার হাঁটাচলা করতে সমস্যা হয়নি কিন্তু সম্প্রতি কিছু সময় ধরে তার হাটতে-চলতে সমস্যা হচ্ছে।

এছাড়া রফিকের প্রতিবেশী সুলেমান জানিয়েছে যে রাফিক গোটা এক হাড়ি খাওয়ার খেয়ে নেন। আর রাফিক একজন স্বচ্ছল কৃষক যার ফলে তার খাওয়ারের অভাব বা অসুবিধার সম্মুখীন হতে হয় না কখনো। যার কারণে তিনি চলা-ফেরা করতে পারেন না এবং বুলেট বাইক ব্যবহার করেন। সুলেমান আরো জানান যে রফিকের ওজনের কারণে অনেক সময় বুলেট বাইকটিও রাস্তায় আটকে যায়। যার ফলে রাস্তার লোকেদের সাহায্য নিয়ে ধাক্কা মেরে বাইকটিকে চালু করতে হয়।

সদর হাসপাতালের ডাক্তার মৃনাল জানিয়েছেন যে রফিকের ‘বুলিমিয়া নার্ভোস’ নামক একটি রোগ আছে। এই রোগে মানুষ বেশি খাওয়ার খাওয়া শুরু করে। সময় থাকতে এই রোগের চিকিৎসা হওয়া প্রয়োজন নাহলে মানুষ মারা যেতে পারে। বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছে এই রোগে বেশিভাগ ক্ষেত্রে রোগীদের অতিরিক্ত খাওয়ার খেতে দেখা যায় এবং তারপর যখন তারা অতিরিক্ত মোটা হয়ে যায় তখন মোটা হওয়ার ভয় তারা ব্যায়াম করতে শুরু করে।

Related Articles

Back to top button