এত বাড়াবাড়ি করার কী আছে! জয়ার তালের বড়া তৈরি নিয়ে ঠাট্টা তামাশা নেটিজেনদের

অন্যান্য সমস্ত সিরিয়াল কে পিছনে ফেলে টিআরপি তে দ্বিতীয় সর্বজয়া ধারাবাহিক মাত্র এক সপ্তাহের মধ্যে। কিন্তু সর্বজয়ার বিশেষ এপিসোড তালের বড়া নিয়ে কটাক্ষ করতে ছাড়েনি নেরিজেনরা । সর্বজয়া টেলিকাস্ট হয় জি বাংলা চ্যানেল এ দুপুর ৩ ঘটিকায় ও রাত ৯ ঘটিকায়। এটি ৩০ মিনিট এর একটি ধারাবাহিক।দেবশ্রী রায় ও কুশল চক্রবর্তী এই ধারাবাহিক এর প্রধান চিত্রনাট্য। এই সিরিয়াল এ সর্বজয়া এক বিশাল ধনী পরিবার এর বধূ হওয়া সত্বেও তিনি খুবই সাধারণ মানুষ, মাটির মানুষ যাকে বলে। খুবই সাধারণ ও সহজ সরল মনের মানুষ তিনি, যে সরল ভাবে জীবন যাপন করেন । আর তার নাটকের মধ্যে দিয়েই এই সিরিয়ালে বাজিমাত করেছেন দেবশ্রী রায়।

সিরিয়াল এ দেবশ্রী রায় অর্থাৎ ধারাবাহিক এর প্রধান চরিত্র সর্বজয়া একজন খুবই উচ্চ ধনী পরিবার এর গৃহ বধূ। যে সাধারণ জীবন যাপন করতে পছন্দ করেন। তিনি পরিবার এর স্ট্যাটাস এর কথা না ভেবেই বাড়ির ছাদে বড়ি দেন রোদে। বিভিন্ন পুজোর চাঁদা তোলেন পাড়ার চেংড়া ছেলেদের সাথে। এবার আবার তালের বড়া বানাতে দেখা গেলো তাকে। নিজেই তিনি তাল ছাড়িয়ে, রস বার করে, ব্যাটার মাখিয়ে নিজেই বড়া বানাচ্ছেন । আবার কখনো নিজেই নারকেল ছাড়িয়ে, তারপর নারকেল দাউ তে কুরিয়ে তিনি নিজেই নাড়ু বানিয়ে নেন।

এর মধ্যেই চ্যানেল এর তরফ থেকে সিরিয়াল এর আসন্ন পর্ব এর প্রমো রিলিজ করা হয়ে গেছে। সেখানে ‘ কাকিজ’ এর নাটক দেখে অবাক দর্শকেরা। এ বিষয়ে তারা অবশ্যই জানিয়েছেন, আগে এই ধরনের চিত্রনাট্য দেখতেই পছন্দ করেন বাড়ির গিন্নিরা। এই ভাবেই স্বাদ আহ্লাদের কথা ভাবতেন তারা। তখন লোকের বাড়িতে এতো আধুনিক সরঞ্জাম ছিল না, পরিবারের কথা ভেবে রান্নাঘরেই ঘণ্টা এর পর ঘন্টা কাটিয়ে দিতেন রান্না করে তারা।

যদিও সর্বজয়া এর তালের বড়া বানানোর দৃশ্য দেখে হাসি ঠাট্টা করতে থামেনি নেটিজেন এরা। অনেকেরই অনেক ধরনের মন্তব্য, তারা মনে করেন সব বাড়িতেই মহিলারা কম বেশি তালের বড়া রান্না করেন, তা নিয়ে এতো বাড়িয়ে দেখানোর কি আছে? শুধু এখন নয় প্রথম থেকেই এই ধারাবাহিক কে নানা কটাক্ষের মুখে পড়তে হয়েছে।

Related Articles

Back to top button