বলিউডের এই ১২ টি ফিল্ম যা তৈরিই হয়েছিল দর্শকদের টর্চার করার জন্যই, যুক্ত রয়েছে শাহরুখ- সালমান সহ আমিরের নাম

বলিউডে প্রতি বছর ডজন ডজন ফিল্ম রিলিজ হয়। এর মধ্যে কিছু কিছু ফিল্ম বক্সঅফিসে দুর্দান্ত আয় করে আর কিছু কিছু ফিল্ম ফ্লপ প্রমাণিত হয়। এই ফ্লপ ফিল্মের তালিকায় কিছু ফিল্ম এমন রয়েছে যেগুলির নাম শুনলেই দর্শকদের মুখ দিয়ে খারাপ কথা বের হয় এবং দর্শকদের মাথা ব্যাথা করা শুরু করে। দর্শকরা মনে করে এই ফিল্ম গুলি বসে দেখাও এক প্রকার টর্চার। এমনকি এই ফিল্ম গুলি কখনো টিভিতে হলে দর্শকরা টিভি বন্ধ পর্যন্ত করে দেয়। আসুন এই আর্টিকেলের মাধ্যমে কয়েকটি ফ্লপ ফিল্মের তালিকা আপনাকে জানাই যেগুলি দেখা দর্শকদের কাছে টর্চারের সমান।

১) ঠাগস অফ হিন্দুস্থান: আমির খান, ক্যাটরিনা কেইফ ও অমিতাভ বচ্চনের মতো স্টার কাস্টরা থাকা সত্ত্বেও এই ফিল্মটি বক্স অফিসে ফ্লপ প্রমাণিত হয়েছিল। আমির খান ভেবেছিল এই ফিল্মটির মাধ্যমে তিনি বলিউডে রাজত্ব করবেন কিন্তু এই ফিল্মটি বক্স অফিসে ফ্লপ হয়ে যায় আর আমিরের আশায় জল ফেলে দেয়। দর্শকরা এই ফিল্মটিকে প্রচন্ড বোরিং রিভিউ দিয়েছিল এবং জানিয়েছিল এই ফিল্মটি দেখা তাদের জন্য টর্চার।তাই আমির খান এই ফিল্মটি তৈরি করার জন্য দর্শকদের কাছে ক্ষমা পর্যন্ত চেয়ে ছিল।

২) তিস মার খান: এই ফিল্মে অক্ষয় কুমার খুব কোনফিডেন্টের সাথে দুর্দান্ত এক্টিং করেছিল এবং এই ফিল্মের গান গুলি মারাত্মক হিট করেছিল। কিন্তু ফিল্মটি রিলিজ হওয়ার পর এই ফিল্মের জঘন্য কমেডি আর গল্প দেখে দর্শকদের রাগে মাথা ফেটে গেছিল আর তাই ফিল্মটি ফ্লপ হয়ে গেছিল বক্স অফিসে।

৩) রেস ৩: রেস ১ ও ২ বক্স অফিসে দারুন সফলতা অর্জন করেছিল। দুটি পার্ট হিট হওয়ায় হয়তো মেকার্স টিমের লেগেছিল যে দর্শকদের যা খুশি দেখাবে আর তাতেই ফিল্ম হিট হয়ে যাবে। এই ফিল্মে সালমান জ্যাক্লিনের, ববির মতো বড় স্টার কাস্ট থাকার পরও ফিল্মটি বলিউডে ফ্লপ প্রমান হয়ে গেছিল। আজও লোকে এই ফিল্মটির জন্য সালমান খানকে গালাগালি দেয়।

৪) জানি দুষমন: এই ফিল্মটিকে হিট বানানোর জন্য মেকার্সরা সবরকম ফর্মুলা ব্যবহার করেছিল। কাস্ট বিএফএক্স এর সব জিনিসের উপর কাজ করা হয়েছিল। কিন্তু এই ফিল্মে কাস্টদের জঘণ্য অভিনয় ফিল্মটিকে ফ্লপ বানিয়ে দিয়েছিল। এই ফিল্মের নাম শুনলে লোকের আজও মাথা ব্যাথা করা শুরু হয়ে যায়।

৫) হিম্মতওয়ালা: অজয় দেবগানের এই ফিল্মটি মারাত্মক পরিমানে বক্স অফিসে ফ্লপ করে গেছিল। প্রথমে দর্শক ভেবেছিল এই ফিল্মটি জিতেন্দ্রর পুরোনো হিম্মতওয়ালা ফিল্মটিকে টক্কর দেবে। কিন্তু ফিল্মটি পুরোনো ফিল্মে হুবহু নকল হওয়ায় বক্স অফিসে ফ্লপ করে গেছিল।

৬) দেশ দ্রোহী: কে আর কে প্রায়ই বলিউডে রিলিজ হওয়া ফিল্ম গুলিকে জঘন্য বানায়। মনে হয় কেআরকে নিজের ফিল্ম গুলি ভুলে গেছে যেগুলিতে তিনি অভিনয় করেছিলেন। দেশ দ্রোহী এমন একটি ফিল্ম যেটি এতটাই ফ্লপ করেছিল যেটা দেখার পর দর্শকদের মাথা ঠুকে মরে যেতে ইচ্ছা করেছিল। এই ফিল্মটিকে বলিউডের সবচেয়ে জঘন্য ফিল্মের মধ্য অন্যতম ধরা হয়।

 

৭) একশন রিপ্লে: এই ফিল্মটি অক্ষয় কুমার, ঐশ্বর্য ও আদিত্য রায় কাপুর অভিনীত ফিল্ম ছিল। এই ফিল্মটির গল্প এতটাই জঘন্য ছিল যে মানুষ এখনো এই ফিল্মটির নাম শুনলে কান্না কাট্টি শুরু করে দেয়।

৮) বুম: ২০০৩ সালে অমিতাভ বচ্চন ও ক্যাটরিনা কেইফের ওই সিনেমাটি রিলিজ হয়েছিল। এই ফিল্মে একটি গ্যাংস্টারের জীবনী খুব কাছ থেকে দেখানো হয়েছিল। এছাড়া এই ফিল্মে অনেক ইন্টিমেট সিনও ছিল। কিন্তু এই ফিল্মটি লোকেদের এতটাই ফালতু লেগেছিল যে এই ফিল্মটি মারাত্মক লেভেলে ফ্লপ হয়ে গেছিল আর এর বেশি টিকিটও বিক্রি হয়নি। এমনকি ফিল্মটি টিভিতে পর্যন্ত দেখায় না।

৯) রাম গোপাল ওয়ার্মার ফিল্ম আগ: রাম গোপাল ওয়ার্মার কাছে ফিল্ম মেকিংয়ের আইডিয়ার কমতি থাকায় তিনি তিনি সোলে ফিল্মের রিমিক তৈরি করার পরিকল্পনা করেছিলেন। সোলে যেমন হিট হওয়ার সব সীমা পর করে দিয়েছিল আর এই ফিল্মটি ফ্লপ হওয়ার সব সীমা পার করে দিয়েছিল। আজও লোকে এই ফিল্মটির কথা শুনলে পালিয়ে যায় আর কেউ কেউ কান্নাকাটি করতে শুরু করে দেয়।

১০) আপ কা শুরুর: এই ফিল্মটি আইএমডীবী-তে মাত্র ২.১ রেটিং পেয়েছিল। হিমেশ রেসামিয়া ও হানসিকার এই ৩ ঘন্টার ফিল্মটি লোকের মাথা ব্যাথা করিয়ে দিয়েছিল ও বক্স অফিসে ফ্লপ প্রমাণিত হয়েছিল।

১১) কার্জ: হিমেশ রেসামিয়া অভিনীত এই ফিল্মটি পুরোনো কার্জ ফিল্মের রিমেক ছিল। এই ফিল্মে হিমেশের জঘন্য অভিনয় ফিল্মটিকে ফ্লপ বানিয়ে দিয়েছিল।

১২) দ্যা লেজেন্ড অফ ড্রোনা: অভিষেক বচ্চন ও প্রিয়াঙ্কা চোপড়ার এই ফিল্মটি বক্স অফিসে খুব বাজে ভাবে ফ্লপ প্রমাণিত হয়েছিল। দর্শকরা আজও এই ফিল্মের মেকার্সদের প্রশ্ন করে যে কি ভেবে তারা এই জঘন্য ফিল্মটি তৈরি করেছিল।

Related Articles

Back to top button