কিছু মাত্র জনপ্রিয়তার লোভে একাধিকবার মিথ্যা বলেছেন এই ৮ বলি তারকা, পরে সত্যি ফাঁস হয়ে যাওয়ায় হয়েছেন চরম ট্রোলড

বলিউডের কয়েকজন সেলিব্রিটি যারা পাবলিকের সামনে নিজেদের বিষয় বড় বড় মিথ্যে বলেছিল

বলিউড (Bollywood) তারকাদের জীবনের বেশীরভাগ সময়টা ক্যামেরার আশেপাশেই কেটে যায়। ফিল্মের শুটিং চলাকালীন ক্যামেরার সামনে থাকাটা স্বাভাবিক। কিন্তু অনেক সময় তাদের ব্যক্তিগত মুহূর্তেও মিডিয়ার ক্যামেরা চলে আসে। তাই বলা যেতে পারে বলিউড (Bollywood)তারকা মানেই ক্যামেরায় মোড়া জীবন। বাড়ির বাইরে পা রাখলেই পাপারাজ্জিদের নজরবন্দি হয়ে যান তারা।  এছাড়া ভক্তরাও এই বলিউড সেলিব্রিটিদের (Bollywood celebrities) ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে জানতে উৎসাহী থাকেন। তবে বলিউড সেলিব্রিটিরা (Bollywood celebrities)বিতর্ক এড়াতে সাধারণত তাদের ব্যক্তিগত জীবনকে গোপন রাখতেই পছন্দ করেন। তার যদি কোনো সাক্ষাৎকারে বা টক শো-তে তাদের ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে প্রশ্ন করা হয় তবে তারা সেই প্রশ্নকে এড়িয়ে যান বা সেই বিষয় মিথ্যার আশ্রয় নেন(lie said by Bollywood celebs) । তবে অনেক সময় তাদের বলা এই মিথ্যা গুলি ধরা পরে যায় এবং পাবলিকের সামনে চলে আসে। এর ফলে কখনো কখনো ট্রোলের স্বীকারও হতে হয় এই সেলিব্রিটিদের। আজ আমরা আমাদের আর্টিকেলে বলিউডের কয়েকজন সেলিব্রিটির বিষয় আলোচনা করবো যারা পাবলিকের সামনে নিজেদের বিষয় বড় বড় মিথ্যে বলেছিল (lie said by Bollywood celebs)ও সেই মিথ্যে গুলো পরে ধরা পরে গেছিল।

১) আমিশা পাটেল: বলিউডের নাম করা অভিনেত্রী আমিশা পাটেল একবার মিডিয়ার সামনে বলেছিলেন যে অভিনেতা অমিতাভ বচ্চনের যে ‘প্রতীক্ষা’ নামক কটেজ রয়েছে মুম্বাইয়ের জুহুতে তার পাশের একটি অপার্টমেন্ট কিনেছেন তিনি। কিন্তু পরে আসল সত্যি সামনে এসেছিল যে আমিশা সেই অপার্টমেন্টটি কেনেনি বরং রেন্টে নিয়েছিলেন। আমিশা পাটেলের এই মিথ্যে শোনার পর সেই ভাড়া বাড়ির মালিক আমিশা পাটেলের প্রবেশ নিষিদ্ধ করে দিয়েছিলেন।

২) অভিষেক বচ্চন: বলিউডের জনপ্রিয় অভিনেতা তার ফিল্ম ‘রাবণ’-এর প্রচারের সময় বলেছিলেন যে ফিল্মের মারাত্মক স্টান্ট গুলি তিনি পারফর্ম করেছিলেন। কিন্তু পরে আসল সত্যি সামনে এসেছিল যখন ব্যাঙ্গালোরের একজন ডাইভিং চ্যাম্পিয়ন যার নাম প্রকাশ ছিল, সে জানিয়েছিলেন যে অভিষেক বচ্চন নয় বরং তিনি সমস্ত স্টান্ট করেছিলেন।

৩) অন্যন্যা পাণ্ডে: বলিউডের বিখ্যাত অভিনেতা চাঙ্কি পাণ্ডের মেয়ে অন্যন্যা পাণ্ডে, যিনি নিজেও আজ বলিউডের একজন নাম করা অভিনেত্রী,তিনি একবার একটি সাক্ষাৎকারে জানিয়েছিলেন যে চলচ্চিত্র জগতের প্রতি তার আগ্রহের কারণে তিনি ইউএসসি অ্যানেনবার্গ স্কুল অফ জার্নালিজম অ্যান্ড কমিউনিকেশন ইনস্টিটিউটে সুযোগ পাওয়ার পরও তা প্রত্যাখ্যান করেছিলেন। কিন্তু পরে আসল সত্যি সামনে এসেছিল যখন অনন্যার স্কুলের এক সহপাঠী দাবি করেছিলেন যে অভিনেত্রী কখনো সেই ইনস্টিটিউটে পরার জন্য এপ্লাই করেনি।

৪) রণবীর সিং: আজ বলিউডের সবচেয়ে জনপ্রিয় সুপারস্টার রণবীর সিং বরাবর বলে এসেছিলেন যে তিনি একজন আউটসাইডার। অর্থাৎ বলিউডে তার কোনো গড ফাদার ছিল না ও তিনি সম্পূর্ন নিজের প্রচেষ্টায় বলিউডে সফল অভিনেতা হয়েছেন। কিন্তু পরে সবার সামনে সত্যি এসেছিল যে রণবীর সিং অভিনেত্রী সোনম কাপুরের মাসির ছেলে এবং কাপুর পরিবারের সাথে তার একটি ফটো সোশ্যাল মিডিয়ায় বেশ ভাইরালও হয়েছিল।

৫) দীপিকা পাডুকোন: বলিউডের সবচেয়ে হাইপেড ও জনপ্রিয় অভিনেত্রী দীপিকা পাডুকোন এক সাক্ষাৎকারের সময় বলেছিলেন যে তিনি কখনো ডেটে যাননি। কিন্তু পরে সত্যি সামনে এসেছিল ও জানা গেছিল যে তিনি অনেকের সাথেই ডেটে গেছিলেন এবং সেইসময় তিনি রণবীর সিংয়ের সাথে সিরিয়াস রিলেশন ছিলেন ও তার সাথেও অনেকবার ডেটে গেছিলেন।

৬) শাহরুখ খান: বলিউডের কিং খান অর্থাৎ শাহরুখ খান একবার এক সাক্ষাৎকারে জানিয়েছিলেন যে তিনি বলিউডে একজন আউটসাইডার ছিলেন এবং নিজের প্রচেষ্টায় কারুর সাহায্য ছাড়াই বলিউডে সফলতা অর্জন করেছিলেন। কিন্তু পরে শাহরুখের মিথ্যে ধরা পড়েছিল ও জানা গেছিল যে শাহরুখের বাবার এনএসডিতে একটি ক্যান্টিন ছিল এবং তার বাবা অনেক সেলিব্রিটির খুব ভালো বন্ধু ছিলেন। অভিনেতার মা দিলীপ কুমারের পরিবারকে চিনতেন এবং শাহরুখ ইডাস্ট্রিতে প্রবেশের আগে বেশ কয়েকবার দিলীপ কুমারের সাথে দেখাও করেছিলেন।

৭) পরিণীতি চোপড়া: বলিউডের বিখ্যাত অভিনেত্রী পরিণীতি চোপড়া তার একটি সাক্ষাৎকারে বলেছিলেন যে শৈশবকালে তাকে আর্থিক সমস্যা ও শ্লীলতাহানির মুখোমুখি হতে হয়েছিল। কিন্তু পরে অভিনেত্রীর এক সহপাঠী এই সমস্ত দাবিকে মিথ্যা দাবি করেছিল এবং এই বিষয় সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি পোস্ট শেয়ার করেছিলেন।

৮) গওহার খান: বলিউডের একটি চেনা মুখ গওহার খান। ইনি ২০১১ সালে একটি রিয়েলিটি শো ‘দ্য খান সিস্টার্স’- এ তার ২৯ তম জন্মদিন উৎযাপন করেছিলেন। কিন্তু ২০১৩ সালে ‘বিগ বস সিজন ৭’- এ যখন তিনি কন্টেস্টেন্ট হিসেবে অংশগ্রহণ করেছিলেন এবং সালমান খান তার বয়স জিজ্ঞাসা করেছিল তখন তিনি বলেছিলেন যে তিনি কুশল ট্যান্ডনের থেকে ১ বছরের বড় । আর সেই সময় কুশলের বয়স ছিল ২৮ বছর। এবার আপনি ভেবে দেখুন ২ বছর ধরে মানুষের বয়স ২৯ বছর কিকরে হতে পারে?

Related Articles

Back to top button