চেহারা নিয়ে একাধিকবার এই টলি অভিনেত্রীদের শুনতে হয়েছে খোটা, তালিকায় রয়েছে মধুমিতা থেকে শুরু করে

তারকা মানেই সারাদিন নেটাগরিকদের চর্চার কেন্দ্রবিন্দুতে থাকা। বিশেষ করে অভিনেত্রী হলে তো কথাই নেই। তবে শারীরিক গঠন, চেহারা, উচ্চতা, গায়ের রং এই সব নিয়ে এমন কোন মানুষ নেই যে অন্যের খোঁটা শোনেন না। সেক্ষেত্রে তারকা হলে তো কোন কথাই নেই। পুরুষদের তুলনায় মহিলাদের ভুগতে হয় এই সমস্যায় বেশি।

সমাজে বডিশেমিং এর যন্ত্রণাটা বয়ে নিয়ে বেড়াতে হয় মহিলাদেরকেই। শুধু সমাজ কেন নারীর চেহারা রোগা হোক কি মোটা, সে লম্বা কিংবা বেঁটে, বা তার গায়ের রং কালো হলে পরিবারের সদস্যদের এই নিয়েও মাথা ব্যথার শেষ থাকে না।

প্রায় বেশিরভাগ মানুষেরই ধারণা ইন্ডাস্ট্রির অভিনেত্রী বা নায়িকা যেই হোক না কেন তাকে হতে হবে একেবারে ‘জিরো ফিগার’ সাথে একেবারে সুন্দর টল ফিগার সাথে টুকটুকে ফর্সা। আজীবন মানুষ এই ধারণার বায়রে বেরোতে পারে না তাদের কাছে সুন্দরীর সংজ্ঞাটা ঠিক এমনই। এর থেকে একটু পান থেকে চুন খসলেই সমালোচনার তুঙ্গে তুলে দেবেন নায়িকাদের। টলিউডে প্রায় অনেক অভিনেত্রীকেই তাদের চেহারার জন্য বারংবার সমালোচনার মুখোমুখি পড়তে হয়েছে। জেনে নিন সেই তালিকায় রয়েছেন কারা কারা।


১) শ্রুতি দাস –

বর্তমানের একেবারে প্রথম সারির অভিনেত্রী হলেন শ্রুতি দাস। গায়ের কালো রঙের জন্য বারবারই তাকে পড়তে হয় সমালোচনার মুখে। তিনি যখন ইন্ডাস্ট্রিতে পাও রাখেননি তখনও তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়নি তার গায়ের শ্যামবর্ন ত্বকের জন্য। আজও যখন তিনি সমাজে একজন প্রতিষ্ঠিত অভিনেত্রী হিসাবে স্থান পেয়েছেন সেখানেও মুক্তি মেলেনি তার। বারে বারে তাকে পড়তে হচ্ছে সমালোচনার মুখে। এক সময়ে তার জীবনের সবথেকে কাছের মানুষ তার প্রাক্তন প্রেমিক সেও খোঁটা দিতে ছাড়েননি। তবে তার গায়ের রঙ কিন্তু তাকে থামিয়ে রাখতে পারেনি।
তার অভিনয় দক্ষতায় জয় করেছেন হাজার হাজার দর্শকদের মন।

২) অপরাজিত আঢ্য –

বর্তমানের একজন হেভিওয়েট অভিনেত্রী অপরাজিত আঢ্য। তার এই স্থূলাকার চেহারার জন্য তাকে পড়তে হয়েছে বারংবার নেটাগরিকদের চর্চার কেন্দ্রবিন্দুতে। তবে প্রথম দিকে সে ছিল একেবারেই রোগা। তাকে তখন অনেকেই তাল পাতার সেপাই বলেই সম্বোধন করতেন। তবে আস্তে আস্তে নিজের চেহারা বাড়ে যাবার সাথে সাথে তার নাম দেওয়া হয় ‘পাশবালিশ’ তবে তাতে মোটেও ভ্রুক্ষেপ করেন না অভিনেত্রী। বরং একেবারে দুর্দান্ত স্বাচ্ছন্দ্যেই জীবন কাটাচ্ছেন তিনি। এই চেহারায় টলিউডে কাঁপিয়ে অভিনয় করছেন তিনি।


৩) তিথি বসু –

স্টার জলশা খ্যাত ‘মা’ ধারাবাহিকের সেই ছোট্ট ঝিলিক আজ আর ছোট নেই। এখন তাকে কিশোরী বলা চলে। তিথি এখন বড় হয়ে গেছে অনেক। অভিনেত্রী তিথি তার নিজের সোশ্যাল মিডিয়ায় ভীষণ অ্যাক্টিভ। হরদম নিজের সোশ্যাল মিডিয়ায় তার নিজের ছবি থেকে শুরু করে তার নাচের ভিডিও তার অনুগামীদের সাথে ভাগ করে নেন তিনি। তবে তার চেহারা নিয়েও উঠে আসে বেশ কিছু কুমন্তব্য। নেটাগরিকদের কথা পাত্তা না দিয়ে বরং নিজের মত নিজের নাচের ভিডিও প্রায়ই পোস্ট করে তিথি। সম্প্রতি তার এক নাচের ভিডিওয় নেটিজেনদের প্রশংসা কুড়িয়েছেন অভিনেত্রী।

৪) মধুমিতা সরকার –

পার পায়নি টলিপাড়ার জনপ্রিয় অভিনেত্রী মধুমিতা সরকার। নেটিজেনদের কুমন্তব্যর শিকার হয়েছেন মধুমিতাও। নেটাগরিকদের দাবি তিনি নাকি ভীষণ রোগা। তবে সে বিষয়ে কোন পাত্তাই দেন না অভিনেত্রী। নিজের মত করে ছোট পর্দার সাথে সাথে বড় পর্দায়ও চুটিয়ে কাজ করে চলেছেন তিনি। বড় পর্দায় তার করা কাজ সম্প্রতি মুক্তি পেয়েছে ‘ট্যাংরা ব্লুজ’।

Related Articles

Back to top button