সম্পত্তির দিক থেকে অমিতাভ বচ্চনকেও পিছনে ফেলে দেবে অভিনেতা শত্রুঘ্ন সিনহা

বলিউডের প্রাক্তন অভিনেতা শত্রুঘ্ন সিনহা হলেন নব্বই এর দশকের সবচেয়ে সফল এবং প্রতিভাবান অভিনেতাদের মধ্যে একজন। পাশাপাশি তিনি একজন অত্যন্ত সফল রাজনীতিবিদ যিনি বহুবছর ভারতীয় লোকসভার সদস্য ছিলেন। শত্রুঘ্ন সিনহা (Shatrughan Sinha) তাঁর ব্যতিক্রমী অভিনয় এবং শক্তিশালী ডায়লগের জন্য বিশেষ পরিচিত। ক্যরিয়ার লাইফে একের পর এক সুপারহিট সিনেমা উপহার দিয়েছেন দর্শকদের যা আজও সমান জনপ্রিয়। বর্তমানে এই প্রবীণ অভিনেতা সিনেমাজগত থেকে দূরে থাকলেও দর্শকদের কাছে তাঁর জনপ্রিয়তা একটুও কমেনি।

শত্রুঘ্ন সিনহা ১৯৪৬ সালে বিহারের, পাটনায় জন্মগ্রহণ করেন। তিনি পাটনা কলেজ থেকে বিজ্ঞানে স্নাতক হন। সেইসঙ্গে ফিল্ম অ্যান্ড টেলিভিশন ইনস্টিটিউট অফ ইন্ডিয়া পুনে থেকে অভিনয়ে ডিপ্লোমা করেছিলেন। এরপর তিনি মুম্বাইতে চলে আসেন, যেখানে তিনি চলচ্চিত্র শিল্পে তার কর্মজীবন শুরু করেন। বর্তমানে শত্রুঘ্ন সিনহা একজন সুখী বিবাহিত মানুষ। তিনি ১৯৮০ সালে প্রাক্তন মিস ইন্ডিয়া পুনম সিনহাকে বিবাহ করেছিলেন এবং তাঁদের তিন সন্তানও রয়েছে, যাদের নাম সোনাক্ষী সিনহা, লাভ সিনহা এবং কুশ সিনহা। তাঁর মেয়ে সোনাক্ষী সিনহা বলিউডের একজন টপ সেলিব্রিটি।

বলিউড খ্যাত এই প্রাক্তন অভিনেতা আজ বিশাল সম্পত্তির মালিক। একসময় শতাধিক চলচ্চিত্রে কাজ করেছিলেন। এরপর বিনোদন জগত ছেড়ে রাজনীতিতে পা রাখেন। আজ কোটি কোটি টাকার সম্পত্তির রয়েছে তাঁর। অভিনেতা শত্রুঘ্ন সিনহার মুম্বাইয়ে জুহুতে ‘রামায়ণ’ নামের একটি ১০ তলার লাক্সরিয়াস বাংলো রয়েছে। ১৯৭২ সালে এই বাংলোটি কিনেছিলেন অভিনেতা শত্রুঘ্ন সিনহা। তখন এই বাড়ির দাম বলিউড বিগ বি অর্থাৎ অমিতাভ বচ্চনের বাড়ি জলসার থেকেও বেশি ছিল। বর্তমানে অভিনেতা তাঁর পুরো পরিবারের সাথে এখানেই থাকেন।

প্রাক্তন অভিনেতা শত্রুঘ্ন সিনহা তাঁর মোট সম্পদ সম্পর্কে ২০১৯ সালে একটি স্টেটমেন্ট দিয়েছিলেন। যেখানে তিনি জানিয়েছিলেন তাঁর সমগ্র সম্পদের পরিমাণ প্রায় ১৯৩ কোটি টাকা। তবে ধরে নেওয়া যেতেই পারে এখন তাঁর সম্পত্তি আরও বেড়ে গিয়েছে। একিসঙ্গে অভিনেতার বিভিন্ন দামী গাড়িও আছে। যার মধ্যে স্করপিও, ইনোভা, মারুতি সিএজ, ফর্চুনারের মত গাড়ি রয়েছে। যাইহোক, বর্তমানে এই শিল্পী তাঁর পরিবার নিয়ে সুখে শান্তিতে অবসর জীবন কাটাচ্ছেন এবং নিঃসন্দেহে বিলাসবহুল উপায়েই জীবন অতিবাহিত করছেন।

Related Articles

Back to top button