বিবাহবিচ্ছেদের জন্য দিতে হবে সাড়ে ৫ হাজার কোটি টাকা, ব্রিটেনের আদালতের নির্দেশ দুবাইয়ের শাসককে

বিশ্বের ধনী দেশগুলোর মধ্যে একটি দেশ হলো দুবাই। এই শহরের বেশিরভাগ মানুষই খুবই বিলাসবহুল জীবনযাপন করেন। যত দিন যাচ্ছে দুবাই শহর এশিয়ার মধ্যে অন্যান্য দেশের তুলনায় দ্রুত উন্নতির হচ্ছে। তবে এখানকার আমির মানুষদের একাধিক বিবাহ হয়ে থাকে এবং একাধিকবার বিবাহ বিচ্ছেদও হয়ে থাকে। এবার বিবাহবিচ্ছেদ হলো স্বয়ং দুবাই শাসক আমির শেখ মোহাম্মদ বিন রশিদ আল – মাকতুমকে।

দুবাইয়ের শাসক আমির শেখের ষষ্ঠতম স্ত্রী ছিলেন ব্রিটেনের রাজকুমারী হায়রা। তাঁদের দুটো সন্তান, কন্যা জালিলার বয়স ১৪ বছর এবং পুত্র জায়েদের বয়স ৯ বছর। ২০১৯ সালে ৪৭ বছর বয়সী রাজকুমারী হায়রা এবং তাঁর সন্তানদের নিয়ে তাঁর জন্ম স্থান ব্রিটেনে পালিয়ে আসেন , স্বামীর অত্যাচার থেকে বাঁচবার জন্য। তিনি ব্রিটেনের আদালতে অভিযোগ করেন, তাঁর স্বামী শেখ তাঁর জীবন দুর্বিষহ করে তুলেছেন। তাঁর স্বামী এটাও হুমকি দিয়েছে , তাদের সন্তানকে তাঁর কাছে ফেরত পাঠাতে। তিনি তাঁর সন্তানদের নিরাপত্তারও আর্জি করেছিলেন আদালতের কাছে। যদিও শেখও মামলা করেছে রাজকুমারীর উপর।

এবার ব্রিটেনের আদালত শেখের উপর মোটা অঙ্কের টাকা চার্জ করলো। তিনি তাঁর স্ত্রীকে সাড়ে ৫০০ মিলিয়ন পাউন্ড দেবে। যার ভারতীয় মূল্যের ৫ হাজার ৫১০ কোটি টাকা। এছাড়াও শেখ আদালতে মামলা চলার সময় রাজকুমারীর ফোন হ্যাক করার অভিযোগ তোলে আদালত তাঁর উপর। যদিও সেই অভিযোগ তিনি উড়িয়ে দিয়েছেন।

৫০০ মিলিয়ন পাউন্ডের মধ্যে রাজকুমারী পাবেন ২৫১.৫ মিলিয়ন পাউন্ড এবং সন্তানরা পাবে বাকিটা। সন্তাররা নাবালক যতদিন আছে, ততদিন শেখকে দিতে হবে ১১ মিলিয়ন পাউন্ড। ৩ মাসের মধ্যেও ৩০০ মিলিয়ন ডলার অগ্রিম দিতে হবে। ব্রিটিশ ইতিহাসে প্রথমবার এতো মোটা খোরপোশের অঙ্ক।

 

Related Articles

Back to top button