যার জন্য নির্বাচনী প্রচারে নেমেছিলেন খান স্যার তিনি হলেন সফল, এত সংখ্যক ভোটে হলেন জয়ী

বলা হয়ে থাকে শিক্ষকের সঠিক শিক্ষার উপর এক জন ছাত্রের ভবিষ্যৎ নির্ভর করে। কিন্তু শিক্ষকের প্রচারের জন্য একজন প্রার্থী বিপুল ভোটে জয়ী হতে পারেন তা কি আপনি কখনো আগে শুনেছেন? এমনটাই হয়েছে বিহারের বুজুর্গের সালাহা পঞ্চায়েত এলাকায়। সেখানে পঞ্চায়েতের প্রার্থী হিসেবে দাঁড়িয়েছিলে ভিপিন যাদব। তাঁর জন্য প্রচার করেছিলেন খান সাহেব। সেই নির্বাচনে তাঁর প্রচারের মাধ্যমে ভিপিন যাদবকে জিতিয়েও ছিলেন।

খান সাহেব হলেন একজন শিক্ষক। তাঁর পাটনায় নিজস্ব কোচিং রয়েছে। তাঁর পড়ানোর স্টাইল সম্পূর্ণ ভিন্ন। তাঁকে তার ছাত্ররাও যথেষ্ট পছন্দ করেন। তিনি জিএস বিষয় গুলো খুব সহজেই বোঝান তাঁর ছাত্রদের। তাঁর নিজস্ব ইউটিউব চ্যানেলও আছে। বিভিন্ন পড়ার বিষয় গুলো নিয়ে তিনি সেখানে ভিডিও বানান। তাঁর ইউটিউবের সাবস্ক্রাইবার ১০ মিলিয়নের বেশি।

তিনি তাঁর বন্ধু ভিপিন যাদবের জন্য নির্বাচনের ভোটের প্রচারে নেমেছিলেন। ভিপিন যাদব গণিত শিক্ষক। সেই সূত্রে তাঁর সাথে খান স্যারের খুবই গভীর বন্ধুত্বের সম্পর্ক। বিহারে পঞ্চায়েত নির্বাচন শুরু হয়ে গিয়েছে। খান স্যার বৈশালী জেলাই সহদেই বুজুর্গের সালহা গ্রামের পঞ্চায়েতে ভোটের আগে প্রচার শুরু করেছিলেন।

তিনি প্রচারে আবেদন করে জানিয়ে ছিলেন, ‘এখন তো একটা খাসিও ৫ হাজারে পাওয়া যায়, তাহলে একজন মানুষ হাজারে বিক্রি হবে কী করে। এক হাজারের বদলে ৫ হাজার নিন, তবে নিজের ইচ্ছায় ভোট দিন।’ এই ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়া দরুন প্রচুর ভাইরালও হয়েছে।

খান স্যারের প্রচার স্বার্থক হয়েছে। তাঁর বন্ধু ভিপিন যাদব তাঁর প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীকে ১০১ ভোটে পরাজিত করেন এবং পঞ্চায়েত প্রধান পদে নির্বাচিত হন।

Related Articles

Back to top button