কোটি টাকার মালিক! তাও অক্ষয় কুমার তার ছেলে আরভকে হাত খরচে দেয় সামান্য পকেট মানি

বলিউড ইন্ডাস্ট্রির জনপ্রিয় অভিনেতা অক্ষয় কুমার ভারতের একজন অন্যতম ধনী অভিনেতা। তিনিই একমাত্র বলিউডের অভিনেতা যে এক বছরের মধ্যে একবারে ৪ থেকে ৫টি সিনেমা শুটিং করেন। একটি ছবির বদলে কোটি কোটি টাকা চার্জ করেন তিনি। তার ফ্যানের পরিমাণ ও কিন্তু কম নয়। তার ফ্যান ফলোয়িং নাম্বার প্রচুর। তার প্রায় অধিকাংশ সিনেমাই বক্স অফিসে হিট হয়েছে। এত পরিমাণে নাম যশ খ্যাতি পাওয়ার পরও তিনি খুবই শৃঙ্খল ভাবে জীবনযাপন করেন। তিনি প্রত্যেকদিন ভোরবেলা ৪ টায় উঠে কঠোর পরিশ্রম করেন। এমনকি বাকি অভিনেতাদের মতো সে কখনো লেট নাইট পার্টি করতেও যায় না। শুটিং শেষে তাড়াতাড়ি করে বাড়ি ফিরে যান এবং বাকি অবসর সময় সন্তান ও পরিবারের সঙ্গে কাটান তিনি।

গোটা দেশ, তার ভক্ত এবং বাকি বলিউড ইন্ডাস্ট্রির সবাই জানে সে তার পরিবার ও সন্তানদের কে কতটা পরিমাণে ভালোবাসে। তিনি প্রায় সময়েই তার স্ত্রী টুইঙ্কেল খান্না ও তার দুই সন্তান আরভ এবং নিতারা এর সাথে ছবি শেয়ার করেন সোশ্যাল মিডিয়া মাধ্যমে।অক্ষয় যত বড় সুপারস্টার হোক না কেন, তিনি তার বাচ্চাদের সাথে তার বাড়ির একজন সাধারণ ব্যক্তির মতো ব্যাবহার করে থাকেন। তিনি সাধারণ পরিবারের বাচ্চাদের মতো করেই তার বাচ্চাদের যত্ন করতে পছন্দ করে থাকেন।

সেই কারণে অক্ষয় ও টুইঙ্কল খান্না দুজনেই তাদের সন্তানদের কে টাকার মূল্য হিসাবে বোঝান এবং এটি কে অপচয় ন করার পরামর্শ দেন। অক্ষয় কুমারের ছেলে আরভ মার্শাল আর্ট এর উপর ব্ল্যাক বেল্ট পেয়ে দক্ষতা লাভ করেছেন। তারপর বিজনেস ক্লাসে ভ্রমণের জন্য প্রথম বার সুযোগ পান আরভ। এটা এই প্রমাণ করে যে অক্ষয় তার সন্তানদের কে শিখিয়েছেন যে সমস্ত কিছু অর্জন করার জন্য আকাঙ্ক্ষা এবং কঠোর পরিশ্রমের সাথে করা দরকার।

আমরা যদি এবার তার মেয়ে নিতারার সম্পর্কে চর্চা করি, তবে নিতারা ছোটবেলা থেকেই বইয়ের প্রতি অনুরাগী। তিনি রামায়ণের সব ধরনের রূপকথার বই পড়তে পছন্দ করেন। টুইঙ্কল তার কাজের কারণে কোথাও চলে গেলে, সেই সময় অক্ষয় কুমার তার দুই সন্তানের দেখাশোনা করেন। তিনি প্রত্যেকদিন কাজ শেষ করে তাড়াতাড়ি বাড়ি ফিরে আসেন এবং তার সন্তানদের সাথে বাকি সময় কাটান। তার সন্তানেরা তাকে প্রশ্ন করে সে সারাদিন কি করেছে তার কাজ এর সম্পর্কে গল্পঃ করেন। অক্ষয় কুমারের মধ্যে শুধুমাত্র একজন ভালো অভিনেতা হওয়ার সাথে একজন শৃঙ্খল বাবা হওয়ার সমস্ত গুনাগুণ আছে।

Related Articles

Back to top button