চলার পথে সমুদ্র সৈকতে দেখা মিলল এক অদ্ভূত প্রাণীর! ‘এলিয়ন’ বলল লোকজন! রইল বিস্তারিত

এই পৃথিবীতে এমন অনেক জিনিস রয়েছে, যা এক জীবনে জানা মানুষের পক্ষে সম্ভব নয়। জল, স্থল এবং মহাকাশ- এই তিন স্থানে মানুষের বিচরণ থাকলেও, এমন অনেক বিষয় আজও অজানাই রয়ে গিয়েছে মানুষের কাছে। চলার পথে অনেক সময় এমন অনেক জিনিস দেখতে পাওয়া যায়, যা দেখে প্রথমটায় কিছুটা তাজ্জব হয়ে গেলেও, পরবর্তীতে তার উৎপত্তি স্থল থেকে শুরু করে, সেই জিনিসের বিষয়ে জানার চেষ্টা করে মানুষজন।

সেরকমভাবেই হঠাৎ করে বালির উপর একটি অদ্ভুত সবুজ, ফ্লুরোসেন্ট বস্তু দেখার পর একজন মানুষ বিভ্রান্ত হয়ে পড়েছিলেন। আর সেটি দেখার পর তিনি ভাবতে শুরু করেছিলেন, এটি আবার কেমন ধরনের প্রাণী। বছর ৩৩-র মাইক আরনট সোমবার এডিনবার্গের পোর্টোবেলো সমুদ্র সৈকতে হাঁটার সময় এই অদ্ভুত প্রাণী দেখতে পেয়ে ইন্ডিপেনডেন্ট রিপোর্ট করেন। প্রথমে এটিকে একটি শ্যাওলা আচ্ছাদিত পাইনকোন বলে মনে হলেও, পরবর্তীতে এটির চলন দেখে ‘জীবিত’ বলা হয়।

এবিষয়ে এডিনবার্গ লাইভকে আরনট জানান, ‘আমি প্রথমে এই অদ্ভুত ফ্লুরোসেন্ট সবুজ জিনিসটিকে খুব ভালোভাবে দেখি, কিন্তু আমি জানতাম না এটি কি জিনিস। এর উজ্জ্বল সবুজ এবং সোনার রঙ আমাকে এই জিনিসের প্রতি আকৃষ্ট করেছিল। আমি এটিকে উল্টে দেখতেই দেখি এটি অনেক ছোট ছোট পা রয়েছে। প্রথমে আমি এটিকে একটি এলিয়ন হিসাবে ভেবেছিলেম। আবার ভেবেছিলাম এটি হয়ত গভীর সমুদ্রের বাইরে থেকে আসা কোন বস্তু’।

তবে এই সমস্ত জল্পনাকে উড়িয়ে দিয়ে স্কটিশ ওয়াইল্ডলাইফ ট্রাস্টের পিট হাসকেল জানান, এই প্রাণীটি হল একধরনের সামুদ্রিক ইঁদুর, যা কীট হিসাবে পরিচিত। তিনি জানান, জলের বাইরে এটিক অদ্ভূত দেখতে লাগে। কিন্তু এটি এক ধরনের সামুদ্রিক ব্রিস্টল ওয়ার্ম যা যুক্তরাজ্যের উপকূলের চারপাশে পাওয়া যায়। ঝকঝকে রং এবং উজ্জ্বল সোনার মত দেখতে হওয়ায় এটি অন্য সামুদ্রিক প্রাণীদের থেকে অস্বাভাবিক এবং আলাদা লাগছিল। শিকারীদের সতর্ক করার জন্য ব্রিস্টলগুলি সবুজ, নীল বা লাল চকচকে হতে পারে। এরা ৩০ সেন্টিমিটার দৈর্ঘ্য পর্যন্ত বড় হতে পারে এবং ছোট কাঁকড়া এবং হার্মিট কাঁকড়া এবং অন্যান্য পোকামাকড় খেতে পারে।

Related Articles

Back to top button