প্রিয় পুত্রবধূকে বিশ্বের সবচেয়ে দামি নেকলেস উপহার দিলেন নীতা আম্বানি

বিখ্যাত ধনোকুবের মুকেশ আম্বানির স্ত্রী নীতা আম্বানি তাঁর লাক্সরিয়াস লাইফ স্টাইল এবং দামী শখের জন্য পরিচিত। তবে বিশাল সম্পত্তির মালকিন হওয়া সত্ত্বেও তিনি অহংকারী নন। নীতা একজন ভালো মনের মানুষ। পাশাপাশি তিনি একজন আদর্শ মা এবং ভালো শাশুড়িও। তিনি তাঁর মেয়ে ঈশাকে যতটা স্নেহ করেন ততটাই তাঁর পুত্রবধূ শ্লোকাকেও ভালোবাসেন। তাই শ্লোকা যখন প্রথম আম্বানি বাড়ির বৌ হয়ে এসেছিল নীতা তাকে এমন একটি মহা মূল্যবান উপহার দিয়েছিলেন যা পুরো বিশ্বকে চমকে দিয়েছিল।

২০১৯ সালে, মুকেশ আম্বানি এবং নীতা আম্বানির ছেলে আকাশ আম্বানির সাথে বিয়ে হয়েছিল শ্লোকা মেহেতার। তাঁরা একে অপরকে ভালোবেসে বিয়ে করেছিলেন। আর তাঁদের এই বিয়ে ছিল বিশ্বের সবথেকে আড়ম্বরপূর্ণ বিয়ে গুলির মধ্যে একটি। সারা বিশ্বের বিখ্যাত, নামীদামী ব্যাক্তিরা সেই বিয়েতে সামিল হয়েছিলেন। ছেলের বিয়েকে স্মরণীয় করে তুলতে চেয়েছিলেন নীতা আম্বানি। তিনি তাঁর পুত্রবধূ শ্লোকার জীবনের বিশেষ মুহূর্তটিকে আরও বিশেষ করে তুলতে মূল্যবান হীরের নেকলেস উপহার হিসাবে বেছে নিয়েছিলেন।

তিনি ‘L’Incomparable’ নামের একটি নেকলেস বেছেছিলেন। যা বিশ্বের সবথেকে মূল্যবান নেকলেস। লেবানিজ জুয়েলার ‘মৌওয়াদ’ দ্বারা তৈরি, নেকলেসটিতে ৪০৭.৪৮-ক্যারেটের একটি মহামূল্যবান হলুদ হীরা রয়েছে। পাতা আকৃতির বিরল এই হীরেটি ১৯৮০ সালে আফ্রিকায় খুঁজে পাওয়া গিয়েছিল। এছাড়া সোনার পাতের উপরে বিভিন্ন সাইজ এবং আকৃতির আরও ৯১ টি সাদা হীরে নেকলেসটিতে বসানো রয়েছে। এই নেকলেসটির মোট ওজন প্রায় ৬০০ ক্যারেট।


২০১৩ সালে নেকলেসটি প্রথম প্রস্তুত করা হয়। এরপর এটা প্রদর্শনীতে রাখা হয়েছিল। তখন এর মূল্য ছিল প্রায় ৪ হাজার কোটি টাকা। আকাশছোঁয়া দামের কারনেই নেকলেসটি গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডেও জায়গা করে নিয়েছে। যদিও নীতা আম্বানি এই নেকলেসটি তার পুত্রবধূকে উপহার হিসেবে দিয়েছেন কি না, তা শুধু আম্বানি পরিবারই বলতে পারবে। কারন নীতা আম্বানি উপহারটির বিষয়ে কোনো তথ্যই প্রকাশ করেন নি। তবে একটা বিষয় নিশ্চিত ভাবে বলা যায় যে, মুকেশ আম্বানি ও নীতা আম্বানি দুজনেই তাঁদের পুত্রবধূকে খুব ভালোবাসেন।

Related Articles

Back to top button