পুরোনো মুদ্রা বিক্রি করে রাতারাতি কোটিপতি, আপনার কাছেও কী রয়েছে এই মুদ্রা?

কথায় বলে শখের দাম লাখ টাকা। অনেকেই আছেন যাদের পুরোনো মুদ্রা জমানোর ভীষণ শখ তার জন্য যেকোন মূল্য দিতেও তারা রাজি। তাই আজ আপনাদেরকে বলবো এমন এক মুদ্রার কথা যার মূল্য বাজারে ১০ কোটি টাকা। যা বিক্রি হয়েছে ১০ কোটি টাকায়। আপনি কি জানেন সেই মুদ্রাটি কি? জেনে নিন সম্পূর্ন তথ্য ।

আপনার কাছে যদি পুরোনো দিনের কোনো মুদ্রা পরে থাকে তাহলে আপনিও সেই মুদ্রা দিয়ে পেতে পারেন লাখ লাখ অথবা কোটি টাকা। তবে আপনাকে মাথায় রাখতে হবে আপনার সঠিক ক্রেতা পেতে হবে। অনেক অনলাইন সাইটে এই ধরণের কয়েন বিক্রি হয়ে থাকে যা কেনার জন্য অনেক মানুষ উৎসুক হয়ে থাকেন। সেই অনলাইন সাইট গুলি মুদ্রা কেনার জন্য প্ল্যাটফর্ম প্রদান করে থাকেন, আপনাকে সেখান থেকে বেছে নিতে হবে আপনার ক্রেতা।

অনলাইনের মাধ্যমে আপনি আপনার এই দুর্লভ কয়েন গুলি বিক্রি করে পেয়ে যেতে পারেন লক্ষ কোটি টাকা। এখনও অনেক দুর্লভ মুদ্রা পাওয়া যার দাম অনলাইন নিলামে প্রায় ১০ লক্ষ থেকে ১ কোটি পর্যন্ত হতে পারে। সম্প্রতি অনলাইন নিলামে একটি ১ টাকার মুদ্রা বিক্রি হয়েছে যার যার দাম স্বরূপ ১০ কোটি রুপি পেয়েছে।

এই মুদ্রার বৈশিষ্ট :-

এই মুদ্রা গুলি আপনার বাড়িতেও থাকতে পারে, এই মুদ্রাটির বিশেষত্ব হচ্ছে এই ১টাকার মুদ্রা ব্রিটিশ আমলের মুদ্রা। এটি তৈরী হয়েছিল ১৮৮৫ সালে ভীষণ পুরোনো ও দুর্লভ মুদ্রা বলে এটির দাম রাখা হয়েছিল কোটি টাকা।

এই ধরণের মুদ্রা অনেকের বাড়িতেই হয়তো পরে আছে। আপনিও চাইলে এই ধরণের মুদ্রা বিক্রি করতে পারেন অনলাইন এর মাধ্যমে। আপনি এই ধরণের অনলাইন প্ল্যাটফর্ম গুলিতে নিজেকে বিক্রেতা হিসাবে নিবন্ধ করে আপনি সেখানে বিনামূল্যে আপনার এই মুদ্রার অ্যাড দিতে পারেন যারা যারা আগ্রহী তারা নিজেরাই আপনার সাথে যোগাযোগ করবে।

ওএলএক্স, কুইকার, ইবে, ইন্ডিয়ামার্ট বিভিন্ন এই ধরণের অনলাইন প্ল্যাটফর্ম গুলি পুরোনো নোট ও কয়েন কেনা ও বেচার জন্য তাদের অনলাইন প্লাটফর্ম সরবরাহ করে থাকে। এখান থেকেই আপনি আপনার মূল্য নির্ধারণ করতে পারেন। আপনি আপনার ক্রেতার সাথে মুল্য নিয়ে আলোচনা করতে পারেন। আপনাকে মাথায় রাখতে হবে আপনার এই মুদ্রা কেনার বিষয়ে ক্রেতা ও বিক্রেতার মধ্যে চুক্তি হবে এর মধ্যে আরবিআই এর কোন রকম ভূমিকা থাকবে না।

Related Articles

Back to top button