সালমানের ছবি দিয়েই শুরু আর সালমানের ছবি দিয়ে শেষ, শেষবারের মত এই ছবিতে শোনা যাবে কেকে’র কণ্ঠ

একসময় প্রতিটি যুবক যুবতীর মনে দাগ কেটেছিল শিল্পী কেকে- এর গাওয়া গানগুলি। নব্বই দশকের সেরা গায়কদের তালিকায় অন্যতম ছিলেন হার্টথ্রব সিঙ্গার কেকে। জীবনের বিস্ময় এবং গভীরতাকে কেকে তাঁর গানের মধ্যে দিয়ে তুলে ধরেছিলেন। ‘ইয়ারন’ , ‘পাল’ , ‘কোই কাহে কাহেতে রাহে’ , ‘দস বাহানে’ , ‘আজব সি’, ‘খুদা জানে’, ‘দিল ইদাবতের’ মত এভারগ্রীন গানের স্রষ্ঠা তিনি। তাঁর গাওয়া এইসব গান আজও মানুষের মনকে ভরাক্রান্ত করে তোলে। দুর্ভাগ্যবশত আজ সেই কেকে হারিয়ে গিয়েছেন চিরতরে।

শিল্পী কেকে-র লাইভ পারফরমেন্স তো আর কোনোদিন দেখা যাবে না। কিন্তু তাহলেও অজস্র গান তিনি ভক্তদের জন্য রেখে গেছেন। যা চিরকাল মানুষের হৃদয়ে থাকবে। জানিয়ে রাখি, কেকে-র গাওয়া শেষ গান রিলিজ হয়েছিল রণবীর সিং এবং দীপিকা পাড়ুকোন অভিনীত ছবি ’83’-তে। এছাড়া চলতি বছরের আসন্ন ছবি ‘লস্ট’ এবং পরিচালক সৃজিত মুখার্জির ছবি ‘শেরদিলে’ কেকের অপ্রকাশিত গান গুলি শোনা যাবে। তবে রিপোর্ট অনুসারে প্রয়াত গায়ক তাঁর শেষ ট্র্যাকটি রেকর্ড করেছিলেন সালমানের আসন্ন ছবি ‘টাইগার 3’-এর জন্য। তাই সালমান খান অভিনীত টাইগার 3-তে শেষবারের মতো তার কণ্ঠ শুনতে পাবেন কেকে-র ভক্তরা।

বলিউডে থাকাকালীন অভিনেতা সালমান খান এবং কেকে একসঙ্গে প্রচুর ছবিতে কাজ করেছিলেন। তার মধ্যে হাম দিল দে চুকে সনম ছবিতে ‘তড়প তড়প’, কে গানটি ভীষণ জনপ্রিয় হয়েছিল। এছাড়া ‘তেরে নাম’ ছবির -এর ‘ও জানা’, ‘রেডি’-র ‘হামকো পেয়ার হুয়া’, ‘এক থা টাইগার’ সহ বেশ কয়েকটি সুপারহিট গানে একসঙ্গে কাজ করেছেন। ‘বজরঙ্গি ভাইজান’-এর ‘লাপ্তা’, ‘তু জো মিলা’ এবং ‘টিউবলাইট’-এর ‘ম্যায় আগর’-এর মতো গানগুলোও কেকের গাওয়া। এককথায় বলা যায় কেকে গাওয়া এইসব গানগুলি সালমানের ছবিগুলিতে প্রাণ সঞ্চার করেছিল।

কে কে ১৯৭০ সালের ২৩ শে আগস্ট দিল্লীতে, জন্মগ্রহণ করেছিলেন। তিনি দিল্লির মাউন্ট সেন্ট মেরি স্কুল থেকে পড়াশোনা করেছিলেন। এরপর কলেজ জীবন শেষ হলে তিনি মার্কেটিং অফিসার হিসেবে যোগদান করেছিলেন কিন্তু ছোটবেলা থেকে তাঁর গানের গলা খুবই ভালো ছিল এবং সেদিকেই ঝোঁক ছিল তাঁর। তাই স্বপ্ন পূরণ করতেই মুম্বাইতে পাড়ি জমান তিনি। বলিউডে ‘ তড়প তড়প কে ইস দিল সে ‘ গানটি গেয়ে তাঁর ভাগ্য খুলে যায়। হিন্দি ছাড়াও তিনি , মারাঠি, বাংলা, গুজরাটি, তেলেগু, মালয়ালম, কন্নড় এবং তামিল গানে কণ্ঠ দিয়েছিলেন তিনি। যাইহোক তাঁর মত প্রতিভাবান একজন শিল্পীর অকাল প্রয়াণ সত্যিই মর্মান্তিক ঘটনা। সঙ্গীত মহল থেকে শুরু করে অনেকে কেকের মৃত্যুতে সমবেদনা জানিয়েছেন। সেইসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকেও কেকে-র মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করে টুইট করতে দেখা গেছে।

Related Articles

Back to top button