Kisan Credit Card ধারকদের ৩ লক্ষ টাকার সুবিধা দিচ্ছে সরকার, জানুন কীভাবে করবেন রেজিস্ট্রেশন

কিভাবে করবেন Kisan Credit Card রেজিস্ট্রেশন

কেন্দ্রীয় সরকার(Central Govt) কৃষকদের সুবিধার জন্য বিভিন্ন ধরণের স্কিম (Scheme) নিয়ে এসেছেন। স্কিমগুলির মধ্যদিয়ে সরকার ক্ষুদ্র ও মধ্যবিত্ত কৃষকদের কৃষি কাজে উৎসাহিত করার চেষ্টা করেন। যে সমস্ত কৃষক আর্থিক ভাবে দুর্বল, সরকার যাতে তাদের সাহার্য্য করতে পারে সেজন্যই সরকারের এই পদক্ষেপ। তেমনই কিষাণ ক্রেডিট(Kishan Credit Card) ভারত সরকার দ্বারা পরিচালিত কৃষক প্রকল্পের মধ্যে উল্লেখযোগ্য।

kisan credit card

Kisan Credit Card এর সুবিধা

এখনো অনেক কৃষক আছে যারা মহাজনদের কাছ থেকে চাষের জন্য টাকা নেয়। পরে সেই টাকা তাঁদের ব্যাংকের থেকে বেশি সুদে শোধ করতে হয়, যাতে কৃষকরা অনেক সমস্যায় পড়েন। তাঁরা যাতে এই সমস্যায় না পড়েন সেজন্য কেন্দ্রীয় সরকার ১৯৯৮ সালে কিষান ক্রেডিট কার্ড(Kishan Credit Card) চালু করেছিলেন। এই কার্ডের মাধ্যমে সরকার কৃষকদের নানা ভাবে সহায়তা করতে পারে সরকার । শুধু তাই নয়, এই কার্ডের মাধ্যমে কোনো কৃষক চাইলে কৃষি কাজের জন্য ৩ লক্ষ টাকা পর্যন্ত লোন নিতে পারেন। যে কোনো ব্যাংক(Bank) থেকে লোন (Loan) পাওয়া যাবে। কম সুদে টাকা নিয়ে চাষে ব্যবহৃত মেশিন, ক্ষেতে ব্যবহৃত কীটনাশক, সার, বীজ ও চাষে প্রয়োজনীয় অন্যান্য জিনিস কিনতে পারে। কার্ডটি ৫ বছরের জন্য বৈধ্য থাকে।

Kisan Credit Card পাওয়ার প্রয়োজনীয় নথি

আপনি যদি কৃষক হন এবং এই কার্ডের সুবিধা নিতে চান তবে আপনার চাষ যোগ্য জমি থাকতে হবে। আপনি যদি ভাগচাষী হন তাহলেও আপনি এই কার্ডের সুবিধা পাবেন। ১৮ বছর থেকে ৬০ বছর বয়সী কৃষকরা কার্ডটির জন্য আবেদন করতে পারেন। তবে আবেদন করার জন্য কিছু প্রয়োজনীয় নথি প্রদান করতে হবে। তার জন্য ভোটার আইডি কার্ড (Voter ID Card) এবং প্যান কার্ড (Pan Card) বা পাসপোর্ট(Pasport), আধার কার্ড(Adhar Card) এবং তার সাথে জমির প্রয়োজনীয় নথি থাকতে হবে।

kisan credit card

আবেদনের পদ্ধতি

আপনি যদি কার্ডটি করতে চান, তবে তা অনলাইন(Online) বা অফলাইন(Offline) যে কোনও উপায়ে আবেদন করতে পারবেন। আপনি চাইলে ব্যাংকে গিয়েও আবেদন করতে পারেন অথবা অনলাইনে করতে চাইলে আপনি https://eseva.csccloud.in/kcc/APIValidate.aspx- এ আবেদন করতে পারেন। শুধু তাই নয়, যে কোনো CSC কেন্দ্র থেকেও কার্ডটি করা যায়। কার্ডটি হাতে পাওয়ার পর কৃষক নিজেই এটিএম(ATM) থেকে এই টাকা তুলতে পারবে। তবে ব্যাংক একটি লিমিতে টাকার পরিমাণ দেয়। টাকার লিমিটি নির্ভির জমির পরিমান ও কৃষক কত টাকা ফেরত দিতে পারবে তার ওপর।

Related Articles

Back to top button