৩০ জন সন্তান-৭ জন স্ত্রী! এই কৃষকের পরিবারে রয়েছে ৫০ জনেরও বেশি সদস্য

কেনিয়ার কিসুমুতে বাস করা ৭৭ বছর বয়সী এনড্রিউ ঔমা (Andrew Ouma)-এর সাতটি পত্নী রয়েছে। তিনি পেশায় একজন কৃষক। তার পরিবারের সদস্য সংখ্যা ৫০-এর বেশি। এর মধ্যে ৩০ জন বাচ্চা রয়েছে, ১৬ জন নাতি-নাতনি এবং তিনজন নাতি-নাতনির বাচ্চারা রয়েছে। এনড্রিউ ১৯৬৬ সালে অর্থাৎ ১৮ বছর বয়সে প্রথম বিয়ে করেছিলেন।

Andrew Ouma

এনড্রিউ (Andrew Ouma) জানিয়েছেন যে একাধিক বিয়ে করা তাদের কালচারের অংশ। আর এতো গুলি বিয়ে করায় তিনি নিজেকে পুরুষ হিসেবে সম্পূর্ন অনুভব করেন। তিনি জানান যে একের বেশি বিয়ে করার ট্রেডিশন তার মায়ের কারনে তাদের পরিবারে শুরু হয়েছিল। কারণ তার মা তার পরিবারের ৬ নম্বর পত্নী ছিল। আর তাই এনড্রিউ নিজের মাকে শ্রদ্ধাঞ্জলি দেওয়ার জন্যই এতগুলি বিয়ে করেছেন। আর এভাবেই তাদের
পরিবারের ট্রেডিশন বেঁচে রয়েছে।

Andrew Ouma and family

যদিও এতগুলি বিয়ে করার ফলে অনেকে এনড্রিউকে নিয়ে সমালোচনাও করে। কিন্তু এনড্রিউ সবাইকে মনে করিয়ে দেন যে এটি তাদের ট্রেডিসনের অংশ। এনড্রিউ আরো জানিয়েছেন যে তিনি সব পত্নীদের খুশি রাখার চেষ্টা করেন। তিনি তার প্রতিটি পত্নীকে একটি করে জমি দিয়েছে যাতে সে সেখানে বাড়ি তৈরি করতে পারে। এমনকি বাচ্চাদেরও আলাদা আলাদা জমি দিয়েছেন যাতে তারা ভালোভাবে জীবনযাপন করতে পারে। এমনকি বাচ্চাদের এযুকেশনের জন্য এনড্রিউ সবাইকে জোর দেন ও আশেপাশের সকলের কাউন্সিলিংও করেন।

আফ্রিম্যাক্স ইংলিশ যখন অ্যান্ড্রুর সাথে কথা বলে, তখন তার তিন স্ত্রী বাড়িতে ছিলেন না। অ্যান্ড্রুর দ্বিতীয় স্ত্রী অ্যাঞ্জেলিনা জানান, তিনি তার স্বামীকে ৬ জন নারীর সঙ্গে শেয়ার করেন। আর তিনি খুশি যে তার স্বামী তার সম্পূর্ণ যত্ন নেয়। অ্যান্ড্রুর চতুর্থ স্ত্রী সিয়া জানান যে তিনি ঘরের পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার যত্ন নেন।

 

Related Articles

Back to top button