বিশ্বের সবথেকে ভয়ানক রেলওয়ে ট্রাক, যেখানে রেললাইনের নিচে ঝুলে চলে ট্রেন

আপনারা জীবনে বিভিন্ন ধরনের ট্রেনের কথা শুনেছেন। প্রত্যেক টাইপ ট্রেনের নিজস্ব বিশেষত্ব রয়েছে। পাহাড়ের উপর দিয়ে যে সব ট্রেন যায়, সেগুলোর গতিবেগ খুবই কম থাকে। কিছু সুপারফাস্ট ট্রেন রয়েছে , সেগুলি মিনিটে গতি ধরে। কিছু প্যাসেঞ্জার ট্রেন রয়েছে, যেগুলি ঘণ্টায় ঘণ্টায় চলে। তবে আজ আপনাদের কিছু ঝুলন্ত ট্রেনের কথা বলবো।

ট্রেনটির ছবি ছবি দেখেই আপনি ঘাবড়ে যাবেন, তবে ভ্রমণকারীরা এই ট্রেনে সফরের সময় মোটেই ভয় পায়না। উচ্চ গতি সম্পন্ন ট্রেনটিতে ভ্রমণকালে প্রকৃতির খুব সুন্দর দৃশ্য দেখতে পাওয়া যায়। ট্রেনটির মধ্যে দিয়ে জার্মানির ওয়াপের্টাল (Wuppertal) শহরের সুন্দর দৃশ্যকে দেখার পাশাপাশি ঝুলন্ত ট্রেনের সফরকেও স্মরণীয় করে তোলে। সমগ্র বিশ্বের লক্ষ লক্ষ মানুষ এখানে পৌঁছায় শুধুমাত্র এই অনন্য যাত্রা করতে এবং বিপরীত ট্রেন দেখতে।

এই ট্রেনটি একবিংশ শতকের নয়; ইতিহাস থেকে জানা যায়, এই ঝুলন্ত ট্রেনটি ১৯০১ সালে প্রথম শুরু হয়েছিল, যা আজ থেকে প্রায় এক শতাব্দী আগের। যখন ট্রেন রুট নির্মাণ করা হয়েছিলো তার আগে সেখানকার শহরগুলি এতটাই উন্নতি করেছিল যে মাটির ওপর দিয়ে ট্রেনের ট্র্যাক বসানোর জায়গা ছিলোনা। ফলত সেখান থেকেই বাতাসে ঝুলন্ত অবস্থায় ট্রেন চলাচল ভাবনা আসে। এই ভাবনাটি বৈজ্ঞানিক কল্পকাহিনী থেকে উদ্ভূত হয়েছে, যা মানুষজন ১২০ বছর ধরে দেখতে পাচ্ছে। এই অনন্য ঝুলনটি রেলপথের ভিডিও ও ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায়র বিভিন্ন প্ল্যাটফর্মে ভাইরাল হচ্ছে। এই ট্রেনে যাত্রার একটি ভিডিও শেয়ার করা হয়েছে @urbanthoughts11 নামের টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে।

এই ট্রেনটি ১৩.৩ কিলোমিটার দূরত্বে সফর করে থাকে, যা মোনারেল (Monarel) নামে পরিচিত। এটি নির্দিষ্ট ট্র্যাকে উপর দিয়ে যাতায়াত করেন। এই ঝুলন্ত ট্রেনটির যাত্রাপথে নদী, রাস্তা, জলপ্রপাত এবং অন্যান্য জিনিস চোখে পড়ে যাত্রীদের। একটি প্রতিবেদন থেকে জানা যাচ্ছে, জার্মানি ছাড়াও বিশ্বে একমাত্র জাপানে এই রেল রয়েছে, যেখানে সাসপেনশন রেলওয়ে পাওয়া যায়। শুধু তাই নয় এই ট্র্যাকটি ১২১ বছরের পুরানো ট্রাক, এখনো যা চলমান আছে। প্রায় ৮২,০০০ যাত্রী প্রতিদিন এই ট্রেনে যাতায়াত করেন।

Related Articles

Back to top button