মুরগির চিৎকারে বিরক্ত প্রতিবেশি, রেগে গিয়ে করলেন এই কাজ! জানুন বিস্তারিত

বর্তমান সময়ের মানুষ খুবই ব্যস্ত। সকাল থেকেই শুরু হয়ে যায় দৌড়াদৌড়ি। যে যার নিজের কাজের প্রয়োজনে বিভিন্ন দিকে ছুটছে। আর এই ছোটাছুটির মাঝে মানুষকে ঘুর থেকে ডেকে তোলার প্রধান উপকরণ হচ্ছে ফোনের অ্যালার্ম। আগেকার দিকে দেখা যেত মোরগের ডাকে মানুষের ঘুম ভাঙ্গল। কিন্তু এখন আর সেই মোরগই বা কোথায়, আর মোরগ পালনের সময়ই বা কোথায়। তাই সকলকে বিরক্ত না করে, নিজের মোবাইলে অ্যালার্ম দিয়ে চুপচাপ শুয়ে পড়াই বুদ্ধিমানের কাজ।

তবে আপনার বাড়ির পাশে যদি মোরগ থাকে এবং সেই মোরগের ডাকে যদি সকাল হয়, তাহলে কেমন হবে? খুবই খারাপ হবে, এমনটাই মনে করে প্রতিবেশীর মুরগি চিৎকারে বিরক্ত হয়ে পুলিশের দারস্থ হলেন এক ব্যক্তি। করলেন পুলিশে অভিযোগ।

img 20221216 233501

এই অদ্ভূত ঘটনাটি ঘটেছে মধ্যপ্রদেশের ইন্দোরে (Indore)। সেখানকার এক চিকিৎসক তাঁর প্রতিবেশির বিরুদ্ধ পুলিশের কাছে অভিযোগ দায়ের করেছেন। ওই চিকিৎসক অর্থাৎ ডক্টর অলোক মোদির দাবি, তিনি রোজ রাত করে বাড়ি ফেরেন। ঘুমাতে ঘুমাতে গভীর রাত হয়ে যায়। আর ভোর হতে না হতেই পাশের বাড়ির এক মহিলার পোষা মুরগিগুলো (chicken) সকাল হতে না হতেই কাঁদতে শুরু করে দেয়। যার ফলে তাঁর ঘুমে ব্যাঘাত ঘটে। এই কারণে তিনি থানায় গিয়ে পুলিশের কাছে এই বিষয়ে অভিযোগ জানান।

img 20221216 233516

এবিষয়ে পলাসিয়া থানার ইনচার্জ সঞ্জয় সিং বেন্স জানান, পলাশিয়া এলাকার গ্রেটার কৈলাশ হাসপাতালের কাছে বসবাসকারী ডাঃ অলোক মোদির থেকে লিখিত অভিযোগ নেওয়া হয়েছে। তবে এই বিষয়ে প্রথমে ওই চিকিৎসক এবং তাঁর প্রতিবেশির সঙ্গে কথা বলে বিষয়টা সমাধানের চেষ্টা করা হবে। আর তাতে যদি সমস্যা না মেটে তাহলে, কোড অফ ক্রিমিনাল প্রসিডিউর (CrPC) এর 133 ধারার অধীনে পাবলিক প্লেসে বেআইনি বাধা বা উপদ্রব সৃষ্টি করার জন্য পড়শি অর্থাৎ মুরগীর মালিকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Related Articles

Back to top button