বলিউডের এই ১০ অভিনেত্রী যারা খলনায়িকার চরিত্রেও অভিনয় করে জিতেছেন দর্শকদের মন

বলিউড ফিল্ম গুলি মানুষের আসল জীবনের দুটি গুরুত্বপূর্ণ দিকের উপর ভিত্তি করে তৈরি হয়। এর মধ্যে একটি দিক হলো ইতিবাচক এবং অন্যটি হলো নেতিবাচক। নায়ক ইতিবাচক দিকটিকে প্রেসেন্ট করে আর ভিলেম সব ভালো জিনিস গুলি নষ্ট করার চেষ্টা করে নেতিবাচক দিকটিকে প্রেসেন্ট করে। পুরোনো সময় বলিউডে নেগেটিভ রোল প্লে করা অভিনেত্রী সংখ্যা খুব কম ছিল। আগেকার সময় বলিউড অভিনেত্রীরা নেগেটিভ রোল প্লে করতো না কারণ এমন চরিত্র প্লে করলে তাদের টপ হিরোইনের তালিকায় জায়গা বানিয়ে রাখা মুশকিল হয়ে যেত কারণ আগেকার সময় কেউ হিরোইনদের নেগেটিভ রোলে দেখতে খুব একটা পছন্দ করতো না। কিন্তু এখন মানুষের চিন্তাধারায় অনেক পরিবর্তন ঘটেছে।এখন মানুষ হিরোইনদের নেগেটিভ চরিত্রতে দেখতে পছন্দ করে আর অভিনেত্রীরাও এই ভূমিকা খুব কনফিডেন্টের সাথে পালন করে। আজ আমরা এই আর্টিকেলে বলিউডের কিছু মহিলা অভিনেত্রীর কথা বলবো যারা ফিল্মে ভিলেনের ভূমিকা পালন করেছিল এবং তাদের ভিলেন হিসেবে দর্শকরা খুব পছন্দও করেছিল।

১) প্রিয়াঙ্কা চোপড়া: ইনি মিস ওয়ার্ল্ডের খেতাব জিতেছিলেন এবং তারপর বলিউডে অভিনেত্রী হিসেবে আগমন ঘটিয়ে ছিলেন। তিনি বেশিভাগ ফিল্মেই নায়িকার চরিত্র দেখা গেছে কিন্তু ২০০৪-এ প্রিয়াঙ্কাকে ‘অ্যাতরাজ’ ফিল্মে নেগেটিভ চরিত্র দেখা গেছিল যার পর তার জনপ্রিয়তা আরো বেশি বেড়ে গেছিল। আর এই রোলের জন্য তিনি নেগেটিভ রোলের অধীনে বেস্ট এক্টরেস আয়ার্ডও পেয়েছিলেন।

২) কাজল: বলিউডে অভিনেত্রী কাজল নিজের গোটা কেরিয়ারে একের পর এক সুপারহিট ফিল্মে কাজ করেছেন এবং বিভিন্ন ধরণের চরিত্র পালন করেছেন। তবে ১৯৯৭-এ মুক্তি পাওয়া ফিল্ম ‘গুপ্ত: দ্যা হিডেন ট্রুথ’ ফিল্মে কাজল নেগেটিভ চরিত্র পালন করেছিলেন। এই ফিল্মে তাকে এজন সাইকো লাভারের ছড়িতে দেখা গেছিল যে তার ভালোবাসার মানুষ সাহিলকে ( ববি দেওয়াল) পাওয়ার জন্য অনেক মানুষকে খুন করেছিল। কাজলের এই চরিত্রটি দর্শকদের থেকে অনেক জনপ্রিয়তা পেয়েছিল এবং কাজলের ভক্তদের সংখ্যা বাড়িয়ে তুলেছিল।

৩) বিদ্যা বালন: বলিউডের জনপ্রিয় অভিনেত্রী বিদ্যা বালন ‘পরিণীতির’ চার্মিং রোল থেকে শুরু করে ‘দ্যা ডার্টি পিকচারের’ সিল্ক-র মতো বিভিন্ন ধরণের চরিত্র পালন করেছেন এবং তার পালন করা প্রতিটি চরিত্রই দর্শকদের কাছে মারাত্মক প্রশংসা পেয়েছে। কিন্তু ফিল্ম ‘ইশকিয়া’ বিদ্যা যে ভিলেনের রোল প্লে করেছিল তা বিদ্যার ফ্যান ফলোয়িং ৩ গুন বাড়িয়ে তুলেছিল। আর সাথে বিদ্যা প্রমান করে দিয়েছিল যে সে যেকোনো রোল খুব সহজেই পালন করতে পারে নায়িকা হোক কিংবা খলনায়িকা।

৪) ক্যাটরিনা কেইফ: ক্যাটরিনাকে দেখতে যেই পরিমান সহজ-সরল কেউ তাকে ভিলেন হিসেবে কল্পনাই করতে পারে না। কিন্তু ‘রেস’ ফিল্মে তাকে ভিলেনের চরিত্রে দেখা গিয়েছিল এবং তার নেগেটিভ চরিত্রটি বেশ জনপ্রিয়তা পেয়েছিল।

৫) উর্মিলা মারতরকার: ‘প্যার তুনে ক্যা কিয়া’ ফিল্মে উর্মিলাকে নেগেটিভ রোলে দেখা গেছিল। এই ফিল্মে তিনি সাইকো লাভারের চরিত্র পালন করেছিলেন। যদিও তার এই ফিল্মটি ফ্লপ হয়ে গেছিল কিন্তু দর্শক তাকে ভিলেনের রোলে বেশ পছন্দ করেছিল।

৬) বিপাশা বসু: বলিউড অভিনেত্রী বিপাশা ফিল্ম জিস্ম-এ ভিলেনের ভূমিকা পালন করেছিলেন। এই ফিল্মে তিনি তার স্বামীকে মোহ-র জালে ফাঁসিয়ে খুন করতে চাইতেন। এই ফিল্মে তার নেগেটিভ চরিত্রকে দর্শক খুব পছন্দ করেছিল।

৭) অমৃতা সিং: ফিল্ম ‘কলিযুগে’ অমৃতাকে নেগেটিভ রোলে দেখা গিয়েছিল। এই ফিল্মে তিনি পোর্ন টাইকুনের ভূমিকা পালন করছিলেন। এই ফিল্মটিকে দর্শকরা খুব পছন্দ করেছিল এবং এই ফিল্মটি তার কেরিয়ারের টার্নিং পয়েন্টও ছিল।

৮) সুপ্রিয়া পাঠক: সাধারণত আমরা সুপ্রিয়া পাঠককে কেয়ারিং মা, ইনোসেন্ট বউমা ইত্যাদি রোল পালন করতে দেখেছি। কিন্তু ২০১৩-তে মুক্তি পাওয়া ফিল্ম “গলিও কি রাজলীলা রামলীলা’ ফিল্মে তাকে নেগেটিভ চরিত্রে দেখা গেছিল। তার চরিত্র লোকের এতোই পছন্দ এসেছিল যে তার ভক্তদের সংখ্যা দ্বিগুন বেড়ে গেছিল এবং তিনি সাপোর্টিং রোলের অধীনে বেস্ট এক্টরেস আয়ার্ডও পেয়েছিলেন।

৯) কঙ্কনা সেন: কঙ্কনাকে আমরা সাধারণত ইতিবাচক চরিত্রেই দেখেছি। তবে প্রথমবার ‘এক থি ডায়েন’ ফিল্মে কঙ্কনাকে নেগেটিভ চরিত্রে দেখা যায়। এই ফিল্মে তিনি ভূত অর্থাৎ সয়তান ডায়েনের চরিত্র পাঠ করেছিলেন। এই ফিল্মটি করার পর তার ভক্তদের সংখ্যা তিনগুন বেড়ে গেছিল এবং তিনি অনেক প্রশংসা পেয়েছিলেন।

 

১০) প্রীতি জিন্তা: প্রীতি জিন্তাকে আমরা সাধারণত কিউট ও বাবলি ধরণের রোল করতেই দেখেছি। কিন্ত আরমান ফিল্মে প্রীতিকে নেগেটিভ চরিত্র দেখা গিয়েছিল। এই ফিল্মে তিনি সোনিয়া কাপুরের চরিত্রে ছিলেন । এই চরিত্রটি অনেক জনপ্রিয়তা পেয়েছিল এবং আজও মানুষ এই চরিত্রটিকে মনে রেখেছে।

 

 

Related Articles

Back to top button