এই একটা ভুলের কারণে ডুবে যায় বলিউডে অমৃতার ক্যারিয়ার, খুলে যায় সাইফ আলী খানের ভাগ্য

একটা ভুলের কারণে ডুবে যায় বলিউডে অমৃতার ক্যারিয়ার

৯০ দশকের বলিউডের (Bollywood) অন্যতম দুই জনপ্রিয় তারকা হলেন সাইফ আলী খান (Saif Ali Khan) ও অমৃতা সিং (Amrita Singh)। যাঁরা নিজ নিজ অভিনয় দিয়ে মানুষের মন জয় করেছেন। তাঁদের নিজ নিজ ফ্যান ফলোয়ার রয়েছে। বিশেষ বিষয় হলো অমৃতা সাইফের প্রথম স্ত্রী। অমৃতা যখন বলিউডের জনপ্রিয় অভিনেত্রী, তখন সাইফ অভিনেত্রীকে বিয়ে করেন। তখন বলিউডে সাফল্য পাননিনি অভিনেতা। তবে বিয়ের পর দুই তারকার জীবনেই আসে নয়া মোড়। একজনের ক্যারিয়ার ধ্বংস হয়ে যায়, আর একজনের ক্যারিয়ারের আসে সাফল্য। আজকের প্রতিবেদন থেকে এ নিয়ে বিস্তারিত জানাবেন। চলুন বিস্তারিত জেনে নিন।

দুই তারকার মধ্যে ১৯৯১ সালে প্রথম পরিচয় ঘটে। সেখান থেকে তাঁদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক তৈরি হয়। কিন্তু এই সম্পর্ক দুজনের জীবনেই পরিবর্তন নিয়ে আসে। যখন অমৃতা সিংয়ের সঙ্গে সাইফের দেখা হয়, তখন অভিনেতার বয়স ছিল ২১ বছর। তখনও সাইফ বলিউডে সেভাবে ক্যারিয়ার গড়ে তুলতে পারেননি। অন্যদিকে অমৃতা ছিলেন সে সময়ের জনপ্রিয় অভিনেত্রী। বড় বড় অভিনেতাদের সঙ্গে বিগ বাজেটের ছবিতে তিনি কাজ করছিলেন। তবে সাইফের সঙ্গে দেখা হওয়ার পর অমৃতার জীবন অনেক পরিবর্তন হয়। আসে এক নয়া মোড়।

দেখা হওয়ার ৬ মাসের মধ্যে তাঁরা একে অপরকে বিয়ে করার সিন্ধান্ত নেন এবং বিয়ে করেন। যদিও অমৃতা সাইফের থেকে ১৩ বছরের বড় ছিলেন এবং তাঁর থেকে অনেক সফল একজন অভিনেত্রী। সে সময় সাইফ ঠিক ভাবে ক্যারিয়ার শুরু করতে পারেননি। জানা যায়, চার বারের মাথায় যখন তাঁরা দেখা করে, তখন তাঁরা একে অপরকে বিয়ে করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল। দুই পরিবারকে না জানিয়ে তাঁরা বিয়ে করেছিল। যখন দুই পরিবারের সদস্য জানতে পারেন, তখন নানা সমস্যা দেখা দিলেও তাঁরা পরে বিয়েটি মেনে নেন।

Saif and Amrita

 

তবে বিয়ের পর বদলে যায় দুই তারকার জীবন। অমৃতাকে বিয়ে করে সাইফের ভাগ্যের তালা খুলে যায়। বিয়ের পর তিনি ভালো ভালো ছবিতে কাজ করার সুযোগ পান। দারুণ দারুণ ছবি তিনি দর্শকদের উপহার দিতে থাকেন এবং দর্শকও তাঁকে পছন্দ করতে শুরু করেছিল। বলিউডে অভিনেতার চাহিদা বেড়ে যায়। তবে বিপরীত প্রভাব পড়ে অমৃতার জীবনে। একদিকে বিয়ের পর সাইফ ক্যারিয়ারে সাফল্য পেতে শুরু করেন। অন্যদিকে অমৃতার ক্যারিয়ার ধ্বংস হতে শুরু করে। ১৯৯৩ সালে তিনি মোটামুটি ৪ টি ছবিতে অভিনয় করলেও, ১৯৯৪ সাল থেকে তিনি আর কোনো ছবি করেননি। সারা আলী খানের জন্মের পর অভিনেত্রী সাংসারিক জীবনে মনযোগ দেন এবং বলিউড ত্যাগ করেন।

 

Related Articles

Back to top button