সুরের মল্লিকা অলকা ইয়াগনিকের বাস্তব জীবন ছিল খুবই দুঃখদায়ক, বিয়ের পরও এই কারণে ২৭ বছর স্বামীর থেকে ছিলেন দূরে

অলকা ইয়াগনিক মিউজিক ইন্ডাস্ট্রির জন্য খুবই জনপ্রিয়। অলকা তার সুরেলা কন্ঠে অনেক গান উপহার দিয়েছেন শ্রোতাদের। তার সংগীত ক্যারিয়ার বিশাল হিট হয়েছে এবং মানুষের মন জয় করেছেন। অলকা ইয়াগনিক সংগীত তথা মিউজিক ইন্ডাস্ট্রি জন্য তার আলাদা পরিচয় এনে দিয়েছে। 56 বছর বয়সী অলকা ইয়াগনিক আজও সংগীতশিল্পী দারুণভাবে সক্রিয়। তিনি ‘পেয়ার কি ঝংকার’ এবং ‘মেরে অংনে মে’-এর মত সুপারহিট গান দিয়ে তার ক্যারিয়ার শুরু করেছিলেন। অলকা ইয়াগনিক তার ক্যারিয়ারের জন্য খবরের শিরোনামে এসে থাকে কিন্তু আজকের লাইমলাইটে আসার কারণ হচ্ছে তার ব্যক্তিগত জীবন বা বিবাহিত জীবন। আসুন জানা যাক!

ইয়াগনিকের ব্যক্তিগত জীবন ছিল নানান উত্থান-পতন ও সংগ্রামে ভরা। ইয়াগনিক মাত্র 14 বছর বয়সে সংগীত শিল্পের নাম কুরিয়েছিলেন। তার মিউজিক ক্যারিয়ারে হিন্দি ভাষার পাশাপাশি আরও আঞ্চলিক ভাষায় 2000 টিরও বেশি গান সংগ্রহে আছে। অলকা ইয়াগনিক এর ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে কথা বললে তিনি 1989 সালে শিলংয়ের ব্যবসায়ী নিরজ কাপুরকে বিবাহ করেছিলেন। বিবাহিত হওয়া সত্ত্বেও অল্কা তার স্বামীর সাথে থাকার সুযোগ পায়নি। প্রায় 27 বছর একে অপরের দূরে থেকে জীবন কাটিয়েছেন। কিন্তু কেন? চলুন জানি।

হ্যাঁ বন্ধুরা, তারা না চাইলেও একে অপরের দূরে থেকে জীবন কাটাতে বাধ্য হয়েছিল। কারণ ইয়াগনিকের স্বামী ছিলেন একজন ব্যবসায়ী এবং তিনি নিজেও বলিউড জগতের একজন বিখ্যাত সুরকার। এদিকে তার স্বামী শিলংয়ে ব্যবসার খাতিরে ব্যস্ত থাকতেন অন্যদিকে ইয়াগনিক মুম্বাইয়ে তার ক্যারিয়ারের ওপর মনোযোগী। এই কারণে দীর্ঘদিন তাদের একে অপরের দূরে থেকে জীবন কাটাতে হয়েছিল।

যদিও কোন দম্পতির বিয়ের পর একে অপরকে ছেড়ে থাকা খুব কঠিন। কিন্তু তাদের বন্ধনে ছিল অসীম ভালোবাসা ও অটুট বিশ্বাস। তবে তার স্বামী ব্যস্ততার ফাঁকেও সময় কাটিয়ে যেতেন মুম্বাইয়ে এসে। অলকা ইয়াগনিক তার সন্তানদের একাই বড় করেছেন।

এক সাক্ষাৎকারে ইয়াগনিক বলেছিলেন, “আমার স্বামী আগে থেকেই শিলংয়ে ব্যবসার সাথে যুক্ত ছিলেন। বিয়ের পর মুম্বাইয়ে ব্যবসা প্রতিষ্ঠা করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল কিন্তু তা সফল হয়নি। এমনকি মুম্বাইয়ে ব্যবসা শুরু করতে গিয়ে অনেক টাকার অপচয় হয়েছিল। যার কারণে আমি নিজেই স্বামীকে শিলংয়ে থেকে ব্যবসা চালিয়ে যেতে বলেছিলাম এবং সন্তানদের দায়িত্ব নিয়ে ছিলাম”। তবে ব্যক্তিগত জীবনে তাদের দুজনের মধ্যে খুব তাল মিল রয়েছে। তাদের অনেক অনুষ্ঠানেই দুইজনকে একসাথে দেখা গিয়েছে।

Related Articles

Back to top button