২১ কোটি টাকার বদলে বচ্চন পরিবারের সম্মান বাঁচিয়ে ছিলেন ঐশ্বর্য রাই বচ্চন

তারকাদের চোখ ধাঁধানো ঝলমলে জীবন সবসময়ই আর্কষণ করে আমজনতাকে। তারকাদের জীবন মানেই লাইমলাইটে ঘিরে থাকা এক মায়াবী জগৎ। ব্যক্তিগত জীবন থেকে কর্মজীবন, জীবনের প্রতিটি অধ্যায়ে যেন ক্যামেরায় ধরা হয়ে থাকে। স্টারদের জীবনের অন্দরমহলে কি ঘটছে তা জানার জন্য সবসময় উৎসূক থাকে দর্শককূল। তার ফলে তাদের জীবনে গোপনীয়তা বজায় রাখা খুবই কঠিন হয়ে দাঁড়ায়। বস্তুতঃ তাদের ব্যক্তিগত জীবন খুব একটা গোপন থাকেও না। বচ্চন পরিবারের এমনইএকটি ভিডিও কলিং প্রকাশ্যে আসায় পরিবারের অনেক গোপন তথ্য উঠে আসে জনসাধারণের সামনে।

বিভিন্ন সময়ে বচ্চন পরিবারের বিভিন্ন ব্যক্তিগত রহস্য উঠে এসেছে সবার সামনে। এমনই এক ব্যক্তিগত খবর মুহূর্তে ভাইরাল হয়ে গেছিল। ঐশ্বর্য রাই বচ্চন এর কাছ থেকে নাকি বেশ কিছু মোটা অংকের টাকা ধার নিয়ে ছিলেন স্বয়ং অমিতাভ বচ্চন । নিজের বড় অংকের লোন শোধ করার জন্যই অমিতাভ কে নিতে হয়েছিল পুত্রবধূ ঐশ্বর্যর কাছ থেকে ধার । এমনই একটি খবর উঠে এসেছে মুহূর্তে ভাইরাল হয়ে গিয়েছিল।

তবে ভাইরাল হওয়া খবরের পিছনে সত্যতা যে কতটা তা যাচাই করা প্রয়োজন । স্টারদের জীবনকে ঘিরে অনেক সময় বিভিন্ন রকম জল্পনা বাজারে ঘুরতে থাকে। যখন লোকসভা নির্বাচনের জন্য জয়া বচ্চন কে ভোটে দাঁড়াতে হয়েছিল সেই সময় অফিসিয়ালি জানাতে হয়েছিল সম্পত্তির বিস্তারিত তথ্য । জল্পনা মতে এই পরিস্থিতিতে অমিতাভের ধার নেয়ার ব্যাপারটি ফাঁস হয় । জানা যায় শুধু ঐশ্বর্য নয় অভিষেক বচ্চন এর কাছ থেকেও বেশ কিছু টাকা ধার নিয়েছিলেন অমিতাভ বচ্চন ।সূত্রমতে প্রায় ১০৮ কোটি টাকা বিভিন্ন জায়গা থেকে ধার করেছিলেন অমিতাভ।

একটি বড় অঙ্কের টাকা প্রয়োজন ছিল অমিতাভ বচ্চনের। একটা সময় একটি বড় অঙ্কের আর্থিক বিপর্যয়ের মুখে পড়তে হয়েছিল বাচ্চন পরিবারকে। সেই সময় মোটা অংকের লোন নিয়েছিলেন অমিতাভ । আর সেটি শোধ করার জন্যই তার প্রয়োজন পড়েছিল বিপুল পরিমাণ টাকার। আর এই দুঃসময়ে তার পাশে এসে দাঁড়িয়েছিলেন পুত্রবধূ ঐশ্বরিয়া রাই বচ্চন। শোনা যায় সেই সময় ঐশ্বর্য রায় নিজে প্রায় ২১ কোটি টাকা দিয়েছিলেন অমিতাভ বচ্চন কে। এছাড়াও বেশ কিছু পরিমাণ টাকা ছেলে অভিষেকের কাছ থেকেও নিতে হয়েছিল ।

জয়া বচ্চন সেই সময়ে অমিতাভ বচ্চনকে প্রায় ৪৮ কোটি টাকা ধার দিয়েছিলেন। বচ্চন পরিবারের এই দুরাবস্থার কথা মুহূর্তের মধ্যে সেই সময়ে নেট পাড়ায় ভাইরাল হয়ে গিয়েছিল। সার্বিক দিক দিয়েই আর্থনৈতিক ভাবে বেজায় ক্ষতির মুখে পড়েছিলেন বচ্চন পরিবার। তবে অমিতাভ বচ্চন নিজে এ কথা কখনো অস্বীকার করেননি। বহু আগে একটি সাক্ষাৎকারে তিনি নিজের মুখে স্বীকার করেছিলেন যে তিনি দেউলিয়া হতে চলেছেন। কঠিন পরিস্থিতিতে বাইরের লোকের কাছে যেমন তাঁকে হাত পাততে হয়েছিল ।

তেমনি বাড়ির নিজ সদস্যদের কাছেও তাঁকে হাত পাততে হয়েছিল। তবে এই নিয়ে জল্পনা হলেও বচ্চন পরিবারের সদস্যদের এই বিষয়ে কোনদিন মুখ খুলতে শোনা যায়নি। বিভিন্ন সময়ে অভিষেক- ঐশ্বর্য রায়ের সম্পর্কের মধ্যে ভাঙন ধরার কথা শোনা গিয়েছে। আবার কখনো শাশুড়ি জয়া বচ্চনের সাথে মনোমালিন্য হয়েছে ঐশ্বর্য রাই বচ্চনের। স্বয়ং অমিতাভ বচ্চনের সাথে ঐশ্বর্য রায়ের সম্পর্ক নিয়েও হাজার মতবিরোধ শোনা যায় । কিন্তু এই সবের উর্দ্ধে গিয়ে বচ্চন পরিবারে আভ্যন্তরীণ অটুট বন্ধন আজও ভক্তদের মন জয় করে।

Related Articles

Back to top button