ট্রেনে ঘুমাতে গিয়ে বিপাকে পড়লেন যাত্রী, পরদিন ঘুম ভাঙতেই কপালে উঠল চোখ

এক যাত্রী ট্রেনে ঘুমাতে গিয়ে বিপাকে পড়লেন

বহু এমন মানুষ আছেন যাঁরা ট্রেনে (Train) ভ্রমণ করতে ভালোবাসেন। ভ্রমণ কালে মানুষকে নানা অভিজ্ঞতার সম্মুখীন হতে হয়। আপনারা নিশ্চই কখনো না কখনো ট্রেনে ভ্রমণ করেছেন। তাহলে নিশ্চই জানেন অনেক যাত্রীই ভ্রমণ কালে ট্রেনে নিশ্চন্ত ঘুম দেন। যে কারণে অনেক সময় তাঁরা তাঁদের গন্তব্য স্থান পেরিয়ে চলে যান। এমন ঘটনা প্রায়শই ঘটে থাকে। তবে কখনো কি শুনেছেন যাত্রী ট্রেনে নিশ্চিন্তে ঘুম দিচ্ছে, তারপর ঘুম থেকে উঠে দেখে ট্রেন স্টেশনেই রয়েছে?এমনই এক ঘটনার সম্মুখীন হতে হয়েছে স্কটল্যান্ড নিবাসী জিম মেটাকাফকে। যা শুনলে আপনি অবাক হবেন, যে এমনটাও আবার হয় নাকি! চলুন তাহলে জেনে নিন কি ঘটেছিলো জিম মেটাকাফকে(Jim Metakaf) সঙ্গে।

Train

কি ঘটনা ঘটেছিল জিম মেটকাফের সঙ্গে জেনেনিন

স্কটল্যান্ড নিবাসী জিম মেটাকাফ, যাঁর বয়স ৪৫ বছর, কাজের সূত্রে স্কটল্যান্ড(Scotland) থেকে ইংল্যান্ডগামী(England) ট্রেনে প্রতিনিয়ত যাতায়াত করেন। গত ১৫ বছর ধরে তিনি একই ভাবে এই ট্রেনে ভ্রমণ করে আসছেন।

তবে এবার তাঁর সাথে এমন ঘটনা ঘটলো যা গত ১৫ বছরে ঘটেনি। তিনি প্রতিদিনের মতো সেদিনও রাত ১০.৩০ মিনিটের ট্রেনে উঠে পড়েন। গ্লাসগো স্টেশন(Glassgo Station) থেকে ট্রেনটি রওনা দেবে পরের দিন লন্ডনে(London) পৌঁছানোর কথা। সে কারণ স্বাভাবিক ভাবেই রাত টুকু ঘুমিয়ে নেওয়ার জন্য ১১ টা নাগাদ ট্রেনে শুয়ে পড়েন। তবে সকালে ঘুমভেঙে তিনি যা দেখলেন তাতে তাঁর চক্ষু চড়কগাছ। তিনি দেখলেন ট্রেন গন্তব্য স্টেশনে যাওয়া তো দূরের কথা, গ্লাসগো স্টেশনেই দাঁড়িয়ে রয়েছে।

England Train

কারণ হিসেবে কি জানালেন রেল কর্তৃপক্ষ

ঘটনাটির পর তিনি বিস্মিত হন এবং সেই ঘটনাটি নিজের টুইট অ্যাকাউন্টে(Twitter Account) শেয়ার করেন। তিনি লেখেন গত ১৫ বছরে ট্রেন যাত্রায় নানা বিচিত্র অভিজ্ঞতার সম্মুখীন হলেই এই ঘটনা তাঁর জীবনে এই প্রথম। কিন্তু এমন কেন ঘটলো? রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ মিডিয়াকে কারণ হিসেবে জানিয়েছেন, ব্রিটেনের তাপমাত্রাও ৪০ ডিগ্রি। যে কারণে রেলের অনেক ট্র্যাক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এর ফলে বহু ট্রেন বাতিল করা হয়। জিমি মেটাকাফে যে ট্রেনটিতে উঠেছিল ওই ট্রেনটিও রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ বাতিল করেছিল। তবে জিমি ঘুমিয়ে থাকার কারণে সে খবর পাইনি।

Related Articles

Back to top button