৬৭ বছর বয়সী বৃদ্ধ বাড়িতে বসেই বানিয়ে ফেললেন ইলেকট্রিক কার, মাত্র ৫ টাকা খরচে ৬০ কিমি দেবে মাইলেজ

৬৭ বছর বয়সী বৃদ্ধ বাড়িতে বসেই বানিয়ে ফেললেন ইলেকট্রিক কার

বৈদ্যুতিক গাড়ির (Electric car) কথা তো সবাই শুনেছে তবে সবসময় এই গাড়িতে (Electric car) যেতে বেশ কিছু সমস্যা পেতে হয়। কেরালার বাসিন্দা ৬৭ বছর বয়সী অ্যান্টনি জন, যিনি পেশায় একজন ক্যারিয়ার পরামর্শদাতা। তিনি প্রতিদিন ৬০ কিলোমিটার দূরত্ব অতিক্রম করে তার বৈদ্যুতিক স্কুটার চালিয়ে অফিসে যেতেন।

Electric car

তবে বর্ষাকাল বা গ্রীষ্ম কালে স্কুটারে করে অফিসে যাতায়াত করতে বেশ কিছু সমস্যায় সম্মুখিন হয়ে হয়েছিল। এসব সমস্যার মধ্যে তিনিও একটি বৈদ্যুতিক গাড়ি (Electric car) তৈরির কথা ভাবেন। যেটি মাত্র ৫ টাকায় সহজেই ৬০ কিলোমিটার দূরত্ব অতিক্রম করতে পারবে।

বৈদ্যুতিক গাড়ি তৈরি করে সমস্যার সমাধান করা যাবে

অ্যান্টনি জন একজন ৬৭ বছর বয়সী অভিজ্ঞ। কেরালার কোল্লাম জেলার বাসিন্দা তিনি। স্কুটারে অফিসে যাওয়ার ঝামেলা থেকে মুক্তি পেতে ২০১৮ সালে একটি বৈদ্যুতিক গাড়ি তৈরির সিদ্ধান্ত নেন তিনি। এর পর ইন্টারনেট থেকে গাড়ি তৈরির যাবতীয় তথ্য পেতে শুরু করেন। ইন্টারনেট থেকে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী, গাড়ি তৈরির জন্য তিনি দিল্লি থেকে বৈদ্যুতিক মোটর, ব্যাটারি এবং অন্যান্য প্রয়োজনীয় উপাদান আনেন।

গ্যারেজ মেকানিক্সের সাহায্যে গাড়ির ডিজাইন করা হয়

অ্যান্টনি তার নিজস্ব গাড়ি তৈরি করার জন্য একটি গ্যারেজ মেকানিক্সের সাথে তার ধারণা এবং একটি বৈদ্যুতিক গাড়ির নকশা শেয়ার করেছেন। তারপর এই মেকানিক্সের সাথে মিলে গাড়ির বডি ও অন্যান্য কাজ শুরু করেন। তবে দেশে করোনার সময় লকডাউনের কারণে তিনি তার প্রকল্পটি সম্পূর্ণ করতে পারেননি। লকডাউন খোলার পরে, তিনি আবার কাজ শুরু করেন এবং কয়েক দিনের মধ্যেই তার বৈদ্যুতিক গাড়ি প্রস্তুত করেন।

Electric car

২ থেকে ৩ জন বসে অনায়াসে যাতায়াত করতে পারে

অ্যান্টনির তৈরি এই বৈদ্যুতিক গাড়িতে ২ থেকে ৩ জন সহজেই যাতায়াত করতে পারবেন। তিনি জানান, এই বৈদ্যুতিক গাড়িটি তৈরি করতে তার খরচ হয়েছে সাড়ে চার লাখ টাকা।

অ্যান্টনির তৈরি এই বৈদ্যুতিক গাড়ির বৈশিষ্ট্য

৬৭ বছর বয়সেও এত সুন্দর গাড়ি ডিজাইন করেছেন তিনি যা সত্যিই দুর্দান্ত। এই বৈদ্যুতিক গাড়িতে স্টিয়ারিং, ব্রেক, ক্লাচ, এক্সিলারেটর, হেডলাইট, ফগ ল্যাম্প, ইন্ডিকেটর সহ ড্রাইভিং সিটের পেছনে ২-৩ জনের বসার জন্যও জায়গা রয়েছে। এই গাড়ির সর্বোচ্চ গতির কথা বলা হলে এটি ২৫ কিলোমিটার প্রতি ঘণ্টা এবং এর ব্যাটারির রেঞ্জ ৬০ কিলোমিটার।

চার্জ হতে বেশি সময় লাগে না

এই বৈদ্যুতিক গাড়ির সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হল এটি সম্পূর্ণ চার্জ হতে বেশি সময় নেয় না। এছাড়া এটি খুব সহজেই পরিচালনা করা যায়। যেহেতু এই গাড়ির সাইজ ছোট, যার কারণে অন্য গাড়ি যেখানে যেতে পারে না সেখানেও নিয়ে যাওয়া যায়।

Electric car

Related Articles

Back to top button